শ্রীলঙ্কায় পৌঁছানোর আগেই ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনীর হাতে ধরা পড়ল পাকিস্তানের মাদকদ্রব্য বোঝাই নৌকা

29
শ্রীলঙ্কায় পৌঁছানোর আগেই ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনীর হাতে ধরা পড়ল পাকিস্তানের মাদকদ্রব্য বোঝাই নৌকা

বিশ্বে শুধু সন্ত্রাস নয়, মাদকদ্রব্যও ছড়িয়ে দিচ্ছে পাকিস্তান। সম্প্রতি তারই নিদর্শন মিললো তামিলনাড়ু উপকূলে। তবে ভারতে নয়, এবার পাকিস্তানের লক্ষ্য ছিল শ্রীলঙ্কা। করাচি থেকে নৌকা বোঝাই মাদকদ্রব্য সমুদ্র পথ ধরে পাড়ি দিয়েছিল শ্রীলংকার উদ্দেশ্যে। উদ্দেশ্য, শ্রীলঙ্কায় পৌঁছানোর পর সেখান থেকেই আন্তর্জাতিক বাজারে এই মাদক বিষ পৌঁছে দেওয়া হবে। কিন্তু এবারও বাধ সাধলো ভারত।

তামিলনাড়ু উপকূলে মোতায়েন রাখা ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনীর হাতে ধরা পড়ল সেই নৌকা। বাজেয়াপ্ত হলো প্রায় ১০০ কিলোগ্রাম হেরোইন। তবে শুধু নিষিদ্ধ ড্রাগ নয়, পাকিস্তান থেকে আগত এই নৌকার মধ্যে প্রচুর অস্ত্র শস্ত্রও মিলেছে। উল্লেখ্য, পাকিস্তানের কার্যকলাপের উপর পূর্ণ নজর রয়েছে ভারতের। তাই ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনীর কাছে আগেই খবর পৌঁছে গিয়েছিল, গত ১৭ই নভেম্বর করাচি থেকে শ্রীলংকার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে ড্রাগ বোঝাই একটি নৌকা।

সেইমতো আগে থেকেই তামিলনাড়ু উপকূলে ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী প্রস্তুত ছিল। উপকূল রক্ষী বাহিনীর এক অফিসার জানিয়েছেন, তামিলনাড়ুর দক্ষিণ উপকূলে থুথুকুড়ির কাছে ড্রাগ এবং অস্ত্রশস্ত্র বোঝাই ওই নৌকাটিকে আটক করা হয়। এই নৌকা থেকে ১০০ গ্রাম ওজনের ৯৯টি হেরোইনের প্যাকেট পাওয়া গিয়েছে। এছাড়াও ২০টি ছোট বাক্সের মধ্যে সিন্থেটিক ড্রাগ পাওয়া গিয়েছে।

ড্রাগের পাশাপাশি পাঁচটি ৯ এমএম পিস্তল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এই প্রতিটি ড্রাগ এবং অস্ত্র শ্রীলংকার পাচারকারীদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হতো। এরপর সেখান থেকেই এইগুলি অস্ট্রেলিয়াসহ পশ্চিমের অন্যান্য দেশগুলিতে পাচার হয়ে যেত। ওই নৌকা থেকে ক্যাপ্টেনসহ ছয়জন ক্রু মেম্বারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের জেরা করে জানা গিয়েছে, সানি ফার্নান্ডো নামক এক শ্রীলঙ্কান যুবকের ওই নৌকাটিকে পাকিস্তান থেকে শ্রীলঙ্কাতে ড্রাগ এবং অস্ত্র পাচারের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হচ্ছিল। তবে গন্তব্যে পৌঁছানোর আগেই তাদের পরিকল্পনা ব্যর্থ করে দেওয়া সম্ভব হয়েছে।