জঙ্গি মদত থেকে বিরত না হলে তার উচিত ফল ভোগ করতে হবে পাকিস্তানকে, হুঁশিয়ারি ভারত বিদেশমন্ত্রকের

4
জঙ্গি মদত থেকে বিরত না হলে তার উচিত ফল ভোগ করতে হবে পাকিস্তানকে, হুঁশিয়ারি ভারত বিদেশমন্ত্রকের

২৬/১১ এর মুম্বাই হামলার ধাঁচে ভারতে আবারও ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসবাদী হামলা চালানোর ষড়যন্ত্র করেছিল পাক মদতপুষ্ট জঙ্গী সংগঠন জয়েশ ই মোহাম্মদ। কিন্তু ভারতীয় সেনা বাহিনীর তৎপরতায় তা ভেস্তে গিয়েছে। উপত্যকা অঞ্চলের নগ্রেটা এলাকা থেকে চার সন্ত্রাসবাদীকে হাতেনাতে পাকড়াও করে ঘটনাস্থলেই নিকাশ করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী। তবে ঘটনা প্রসঙ্গে পাক সন্ত্রাসবাদীদের ষড়যন্ত্র নিয়ে ভারতের উদ্বেগও কিন্তু বেশ বেড়েছে।

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে ভারতের বিদেশমন্ত্রক। বিশেষত ঘটনার জবাবদিহি চেয়ে পাক হাই কমিশনারের কাছেও চিঠি পাঠিয়ে তাকে তলব করে পাঠানো হয়েছে। শনিবার পাকিস্তানি হাই কমিশনের প্রধান আফতাব হাসান খানের কাছে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি কার্যকলাপের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় প্রতিবাদ করে একটি চিঠি পেশ করা হয়েছে। ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক সূত্রে খবর, নগ্রেটার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানি হাইকমিশনকে কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, এই নিয়ে চলতি নভেম্বর মাসেই পরপর দুইবার পাকিস্তানি হাইকমিশনারকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। দ্বিতীয় দফায় পাক হাইকমিশনারকে কড়া ভাষায় জানানো হয়েছে, পাকিস্তান যদি জঙ্গিদের মদতদাতার ভূমিকা থেকে বিরত না হয়, তাহলে পাকিস্তানকে তার উচিত ফল ভোগ করতে হবে। ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে, দেশের সুরক্ষা রক্ষার্থে যা কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করার প্রয়োজন পড়বে, তা করতে দ্বিধা করবে না ভারত।

এদিকে, যে চারজন জঙ্গিকে এদিন উপত্যকা অঞ্চলে নিকেশ করা হয়েছে তাদের সঙ্গে জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারের শ্যালক আবদুর রউফ আসগারের যোগসুত্র খুঁজে পেয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দা বিভাগ। পাশাপাশি জঙ্গিদের কাছ থেকে বিপুল অস্ত্র শস্ত্র এবং পাকিস্তানে তৈরি বেশ কয়েকটি মোবাইল হ্যান্ড সেট, জিপিএস সিস্টেম এবং ওয়ারলেস সেট পাওয়া গিয়েছে। যা থেকে জঙ্গিদের পাক যোগ বেশ স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।