দেশের করোনা মোকাবিলায় আট দফা প্রস্তাব জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন বিরোধীরা

4
দেশের করোনা মোকাবিলায় আট দফা প্রস্তাব জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন বিরোধীরা

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খাচ্ছে রাষ্ট্র। দেশের প্রতিটি রাজ্য আজ অক্সিজেনের অভাবে, ভ্যাকসিন এর অভাবে, উপযুক্ত চিকিৎসা সরঞ্জামের অভাবে ধুঁকছে। অথচ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বর্তমানে সেন্ট্রাল ভিস্তা পদ্ধতিতে সংসদ সাজাতে ব্যস্ত! সেন্ট্রাল ভিস্তা পদ্ধতিতে সংসদ না সাজিয়ে বরং আপাতত সেই অর্থ এবং পিএম কেয়ারের অর্থ দেশের করোনা মোকাবিলায় ব্যবহার করা হোক। এই মর্মে বিরোধীরা মোদি সরকারকে একটি চিঠি পাঠালেন।

করোনা সংক্রমণের দরুন ভারতবর্ষে মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউ এবং তা সামাল দিতে মোদি সরকারের অপারগতাকে “গণ বিপর্যয়” বলে উল্লেখ করেছেন বিরোধীরা। বিরোধীদের দাবি, সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প বন্ধ করে সেই অর্থ দিয়ে দেশবাসীকে বিনামূল্যে টিকাকরণ করা হোক। পিএম কেয়ার ফান্ডের সমস্ত টাকাও টিকা, অক্সিজেন এবং চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনার জন্য বরাদ্দ করা হোক।

ঠিক এই মর্মে বিরোধীরা সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে মোট আট দফা প্রস্তাব পাঠিয়েছেন। ওই প্রস্তাবে করণা দমনের পাশাপাশি কেন্দ্রের প্রণীত বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহার করে নেওয়ার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। বিরোধীদের দাবি, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে ইতিপূর্বে কেন্দ্রকে সতর্ক করেছিল বিরোধীরা। তবে কেন্দ্রীয় সরকার তা সম্পূর্ণভাবে এড়িয়ে গিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের এই উদাসীন মনোভাবের কারনেই আজ গণ বিপর্যয়ের সম্মুখীন ভারত বর্ষ।

কৃষি আইন প্রত্যাহার, গরীবদের বিনামূল্যে খাদ্যশস্য সরবরাহ এবং বেকারদের প্রতিমাসে ৬ হাজার টাকা করে দেওয়ার প্রস্তাবও উক্ত চিঠি মারফত কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে পাঠিয়েছেন বিরোধীরা। মায়াবতীর বহুজন সমাজ পার্টি এবং অরবিন্দ কেজরীওয়ালের আম আদমি পার্টি ছাড়া বাকি সব দলের প্রতিনিধিদের স্বাক্ষর রয়েছে ওই চিঠিতে।