একসঙ্গে দেড় হাজার যাত্রী! জানুন বিশ্বের বৃহত্তম যাত্রিবাহী বিমানের অজানা কথা

8
একসঙ্গে দেড় হাজার যাত্রী! জানুন বিশ্বের বৃহত্তম যাত্রিবাহী বিমানের অজানা কথা

‘এয়ারবাস’ এবং ‘বোয়িং’ সংস্থাগুলি বিশ্বের বৃহত্তম যাত্রিবাহী বিমানগুলির বেশির ভাগ তৈরি করে। পৃথিবীর বৃহত্তম বিমান ‘এয়ারবাস ৩৮০-৮০০’। ‘বোয়িং ৭৪৭’কে টেক্কা দিতে ‘এয়ারবাস’ সংস্থা তার চেয়েও বড় আকারের যাত্রিবাহী বিমান তৈরি করার পরিকল্পনা করে।

‘এয়ারবাস’ তিনটি বিমান পরীক্ষা করার জন্য নির্মাণ করেছিল । এই তিনটি বিমান-সহ মোট ২৫৪টি বিমান তৈরি করা হয় সংস্থার তরফে। ২০০৭ সালে ‘এয়ারবাস ৩৮০-৮০০’ বিমানটি প্রথম বিক্রি করা হয় ‘সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস’কে। সিঙ্গল ক্লাসে ৮৫৩ জন যাত্রী এবং দ্বিতীয় টিয়ারে ৬৪৪ জন যাত্রী নিয়ে প্রায় ১৫০০ যাত্রীর ভার নিতে পারে এই বিমানটি। ২০০১ সালে সংস্থা থেকে নির্মাণকার্য বন্ধ হয়ে গেলেও ‘ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ’, ‘সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনস’ ও ‘এমিরেট’ সংস্থার অন্তর্ভুক্ত বিমানগুলি এখনও কার্যত রয়েছে।

এরপরে তালিকায় রয়েছে ‘বোয়িং ৭৪৭-৮’-এর নাম। এই বিমানটির ভ্রমণ পরিসীমা ১৪,৮১৬ কিলোমিটার। সিঙ্গল ক্লাসে মোট ৭০০ জন যাত্রীর বসার জায়গা রয়েছে। তবে, ২০২২ সালের অক্টোবর মাসে এই বিমান প্রস্তুতি বন্ধ করা হবে বলে জানা যায়।

১৪২টি বিমানের মধ্যে ইতিমধ্যেই ১০০টি বিমান নির্দিষ্ট সংস্থাগুলিকে বিক্রি করে দিয়েছে ‘বোয়িং’। আমেরিকার বায়ুসেনাবাহিনীকেও ২০২৪ সালে একটি ‘বোয়িং ৭৪৭-৮’ বিমান পাঠানো হবে।

‘বোয়িং’ বিমান নির্মাণ সংস্থার তরফে আরও দুটি বিমান তৈরি কর হয়েছে, যা বিশ্বের প্রথম পাঁচটি বৃহত্তম বিমানের তালিকায় রয়েছে। তার মধ্যে একটি হল ‘বোয়িং ৭৪৭-৪০০’।