আগামী ১৬ই জানুয়ারি ফের তৃণমূলের একাধিক নেতাকর্মী যোগদান করতে চলেছেন বিজেপিতেঃ সূত্র

12
আগামী ১৬ই জানুয়ারি ফের তৃণমূলের একাধিক নেতাকর্মী যোগদান করতে চলেছেন বিজেপিতেঃ সূত্র

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার নেতৃত্বে দিল্লিতে আজ কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে একটি বিশেষ বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে। এই দিনের বৈঠকে অংশগ্রহণ করার জন্য বাংলায় বিজেপির সর্বভারতীয় সহসভাপতি মুকুল রায় বৃহস্পতিবারই দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন। আজ সকালেই দিল্লির উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও এ দিনের বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে।

তবে এখানেই কিন্তু শেষ নয়, আগামী ১৬ই জানুয়ারি অর্থাৎ শনিবার বঙ্গ বিজেপির পাল্লা আরও বেশি ভারী হতে চলেছে। কারণ তৃণমূল থেকে একাধিক নেতাকর্মী এই দিন বিজেপি দলের সঙ্গে যোগদান করতে চলেছেন, বঙ্গ বিজেপি-র অভ্যন্তরে এরকমই গুঞ্জন উঠেছে। সম্প্রতি সেই গুঞ্জনের পারদ আরও একধাপ চড়িয়েছেন বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ শতাব্দি রায়। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, যদি কোনো সিদ্ধান্ত নেন, তাহলে ১৬ই জানুয়ারি দুপুর দুটোর দিকে তা পরিষ্কার হয়ে যাবে।

শতাব্দি রায় ছাড়াও তৃণমূলের বেসুরো নেতাকর্মীদের মধ্যে রয়েছেন রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, সদ্য মন্ত্রিসভা ও দল ত্যাগী লক্ষ্মীরতন শুক্লা, বালির তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া ও হাওড়ার প্রাক্তন মেয়র রথীন চক্রবর্তী। এদেরকেও ঐদিন দিল্লির সাংগঠনিক সভায় দেখা যেতে পারে বলে অনুমান করছে রাজনৈতিক মহল। তবে বিজেপির তরফ থেকে এখনই অবশ্য খোলসা করে কিছু জানানো হয়নি।

এদিকে নতুনের আগমনে বিজেপি দলের পুরোনো সদস্যরা যাতে মনোক্ষুন্ন না হোন, একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলেই যেন গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব শুরু না হয়ে যায়, এ বিষয়েও বেশ চিন্তিত কেন্দ্রীয় শাসক দল। তাই এই বিষয়ে লক্ষ্য রাখার গুরুভার পেয়েছেন বঙ্গ বিজেপির শীর্ষস্থানীয় নেতারা। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফ থেকে ইতি মধ্যেই তাদের এ বিষয়ে বার্তা দেওয়া হয়েছে।