লাইভে এসে নেটিজেনদের কটাক্ষের মোক্ষম জবাব দিলেন নুসরাত

14
লাইভে এসে নেটিজেনদের কটাক্ষের মোক্ষম জবাব দিলেন নুসরাত

নুসরাত জাহান কে যতটাই মানুষ ভালবাসলে, ঠিক ততটাই ঘৃণা করতে শুরু করে দিয়েছেন এই বছর থেকে। হঠাৎ যেন কি থেকে কি হয়ে গেল। বিয়ে করে সুখে সংসার করছিলেন তিনি। হঠাৎ করেই পরকীয়ায় মেতে উঠলেন এবং অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লেন নুসরাত জাহান। স্বামীর সঙ্গে কোনো মনোমালিন্য ছাড়াই স্বামীকে পরিত্যাগ করে দিলেন তিনি। তবে নিজের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে এখনো পর্যন্ত অভিনেত্রীকে কোন মন্তব্য করতে শোনা যায়নি।

তবে নুসরাত জাহান কে নিয়ে ভীষণভাবে উপহাস করতে শুনতে পাওয়া যাচ্ছে সকল মহলে। তবে অভিনেত্রী যে কোনো কিছুকেই পরোয়া করেন না তা খুব ভালো ভাবেই বোঝা যায়। যার প্রমাণ আরো একবার পেলাম কিছুদিন আগে একটি লাইভ দেখে। এটি গর্ভ নিরোধক ঔষধের ব্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে দেখা যায় এই নায়িকাকে। প্রসঙ্গত, গর্ভধারণ করার পর থেকে এই নিয়ে ব্যাপক ট্রল করতে দেখা গেছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

সম্প্রতি এই ওষুধ সংক্রান্ত নানা আলোচনার জন্য লাইভে এলে অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরাত জাহান। তার সঙ্গে আলাপচারিতায় ছিলেন পরিচালক সুদেষ্ণা রায়। মূলত মহিলাদের নিয়েই আলোচনা করা হয়। যে সমস্ত নারীরা সংসারে অবহেলিত তাদের কথা তুলে ধরা হয়েছে এই লাইভ এর মাধ্যমে। নুসরাত জাহান প্রত্যেক নারীকে অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছেন এই লাইভ এর মাধ্যমে।

তবে লাইভ শেষ করার পর স্বাভাবিকভাবেই তাকে নিয়ে উপহাস তৈরি করা হয়েছে। ওই লাইভে কথা প্রসঙ্গে নুসরাত জাহান বলেছিলেন, আমার মেয়ে হলে তাকে শেখাবো যাতে কারো কাছে মাথা নত না করে। ছেলে হলেও একই কথা শেখাবো। নিজেকে ভালো রাখার বার্তা দিয়েছেন তিনি একাধিকবার। জীবনের বিশেষ মুহূর্তে সমঝোতা নেতিবাচকতা দূরে সরিয়ে রেখে দিয়েছে ভালো আছেন তা বারবার স্পষ্ট হয়ে যায়।

ফেসবুক লাইভে তার সন্তান নিয়ে যখন তিনি আলোচনা করেছেন তখন একটি কমেন্টের শিকার হতে হয়েছে তাকে। জনৈক ব্যক্তি বলে ওঠেন, মেয়ে হলে কি শিক্ষা দেবেন আপনি? আপনার কি মনে হয় আপনি সঠিক শিক্ষা দিতে পারবেন? উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, আমাকে নিয়ে যারা উপহাস করেন তাদের নিয়ে ভাবা আমি বন্ধ করে দিয়েছি। আসলে আমি পাবলিক ফিগার বলেই আমাকে নিয়ে এত কথা বলা হয়। যদিও যারা কথা বলেন তারা ফেক অ্যাকাউন্টের আড়ালে গিয়ে কথা বলেন। আমি এই সমস্ত কথা নিয়ে চিন্তা ভাবনা করি না।