শিক্ষাক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর গৃহীত পদক্ষেপের ফলে কমছে স্কুলছুট পড়ুয়ার সংখ্যাঃ সমীক্ষা

7
শিক্ষাক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর গৃহীত পদক্ষেপের ফলে কমছে স্কুলছুট পড়ুয়ার সংখ্যাঃ সমীক্ষা

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্যের উন্নয়নের জন্য একাধিক গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প, পদক্ষেপ গ্রহণ করে চলেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবুজ সাথী প্রকল্প আগেই বিশ্বের দরবারে মান্যতা পেয়েছে। এছাড়াও রাজ্যবাসীর জন্য কন্যাশ্রী, যুবশ্রীর মতো সুযোগ সুবিধাগুলি প্রদান করে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তার অনুপ্রেরণায় এ রাজ্যে শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ উন্নতি সাধন হয়েছে।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি সংস্থার তরফ থেকে একটি সমীক্ষার রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে। সেই রিপোর্ট বলছে, মুখ্যমন্ত্রী পড়ুয়াদের জন্য যে সবুজ সাথী, কন্যাশ্রী প্রকল্প চালু করেছিলেন, তা বেশ ফলপ্রদ হয়েছে। এ রাজ্যে স্কুল ছুট পড়ুয়ার সংখ্যা আগের তুলনায় অনেকটাই কমেছে। আর এর সবটাই সম্ভব হয়েছে শিক্ষাক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকে গৃহীত সামাজিক প্রকল্প গুলির জন্য।

রিপোর্ট অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের স্কুল ছুট পড়ুয়ার সংখ্যা ৩.৩ শতাংশ থেকে কমে ১.৫ শতাংশে পৌঁছেছে। অর্থাৎ স্কুলের প্রতি এখন ছাত্র ছাত্রীদের আগ্রহ আগের তুলনায় অনেকটাই বেড়েছে। এর আগে দরিদ্র পরিবারের মেয়েরা অর্থের অভাবে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারতেন না। মুখ্যমন্ত্রী তাদের কথা ভেবে এবং তাদের উচ্চ শিক্ষার প্রতি আগ্রহী করে তুলতে “কন্যাশ্রী” প্রকল্পের উদ্ভাবন করেন।

“কন্যাশ্রী” প্রকল্পের আওতায় পশ্চিমবঙ্গের মহিলা পড়ুয়ারা প্রাথমিক স্তর থেকে সর্বোচ্চ পর্যায় পর্যন্ত স্কলারশিপের মাধ্যমে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারেন। “সবুজ সাথী” প্রকল্পের আওতায় পড়ুয়াদের সাইকেল দেওয়া হয়, যাতে বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ের দূরত্ব সহজেই অতিক্রম করতে পারেন তারা। বেসরকারি সংস্থা সূত্রে খবর, ২০১৮ সাল থেকে ২০২০ সালের মেয়াদে দেশের ২৬টি রাজ্যের ৫৮৪টি জেলার ১৬ হাজারের কিছু বেশি গ্রামের মধ্যে ৫২ হাজারেরও বেশি পরিবারের উপর সমীক্ষা চালিয়ে এই রিপোর্ট পেশ করেছে তারা। যেখানে স্কুলছুট পড়ুয়ার সংখ্যা হ্রাসের নিরিখে বেশ এগিয়ে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ।