এখন ভিক্ষাবৃত্তিও ডিজিটালাইজেশনে

13
এখন ভিক্ষাবৃত্তিও ডিজিটালাইজেশনে

ডিজিটাল ইন্ডিয়া, ভারতকে ডিজিটাল গড়ে তোলার জন্য সরকারের তরফ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ভারত এখন ডিজিটালাইজেশনের ছোঁয়ায় অনেকটাই পরিবর্তন হয়েছে। সমস্ত সরকারি কাজকর্ম যেখানে আগে অফলাইনে এর মাধ্যমে করতে হতো, সেখানেই আজ ঘরে বসেই অনলাইনে করা সম্ভব হয়। ডিজিটালাইজেশনের প্রথম পদক্ষেপ ছিল সাধারণ মানুষের আধার কার্ড,যা এখন প্রায় সমস্ত নদীর সাথে লিঙ্ক করার কথা বলা হয়েছে।

তাহলে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তাহলে কেন বাকিরা সেই পথের পথিক হবে না? যুগের সাথে তাল মিলিয়ে সম্পূর্ণ নিজের উপার্জনের পথ কেউ ডিজিটাল করে ফেলল বিহারের বেতিয়া রেলস্টেশনের এক ভিক্ষুক। ভিক্ষুকটির নাম রাজু পাটেল, যিনি কিনা প্রধানমন্ত্রী মোদির দারুণ ভক্ত। এতটাই ভক্ত যে প্রধানমন্ত্রীর মন কি বাত এর কোন পর্বে তিনি বাদ দেননি। দীর্ঘ সময় ধরে বেতিয়া রেলস্টেশনে তিনি ভিক্ষা করছেন, আর সেই কারণেই সবার কাছেই তিনি পরিচিত।

তার এক অভিনব উদ্যোগ, তিনি ভিক্ষা করেন ডিজিটাল পন্থায়। অর্থাৎ তিনি কোনো ক্যাশ নেন না, একেবারে অনলাইনের মাধ্যমে সে ভিক্ষা করে। গলায় তার সর্বদা ঝুলানো থাকে কিউআর কোড, যেটাতে স্ক্যান করে আপনি সহজেই থাকে টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাথে লালুপ্রসাদ যাদবের দারুণ ভক্ত। নতুন পদ্ধতিতে ভিক্ষা করা নিয়ে তিনি জানিয়েছেন, আমি খুব ছোটবেলা থেকেই এই বেতিয়া রেলস্টেশনে ভিক্ষা করি, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হয় সবাইকে।

তাই আমিও এখন ডিজিটাল পন্থা বেছে নিয়েছি। অনেক মানুষ অনেক সময় বলে থাকে খুচরো নেই, এখন কার্ড , ই ওয়ালেটের যুগ। ক্যাশ টাকা আমার কাছে নেই, তাই সমস্ত দিক বিবেচনা করে আমিও আমার উপার্জনের পদ্ধতিকে ডিজিটালাইজেশনে করে নেই। তবে হ্যাঁ তার নথিপত্র বিশেষ করে আধার কার্ড প্যান কার্ড এইসব করতে দারুন কাঠ-খড় পোড়াতে হয়েছে।।