এবার অনলাইনে লিপস্টিকের মত কোন প্রসাধনী দ্রব্য কেনার আগে আপনি সেটি পরখ করে দেখতে পাবেন

5
এবার অনলাইনে লিপস্টিকের মত কোন প্রসাধনী দ্রব্য কেনার আগে আপনি সেটি পরখ করে দেখতে পাবেন

রমণী হয়েও সাজসজ্জা পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুব কম আছে। বিশেষত প্রত্যেকটি মেরি লিপস্টিকের প্রতি একটি আলাদা দুর্বলতা রয়েছে। কিন্তু বর্তমান সমাজ রয়েছে মুখোশের আড়ালে। তাই ইচ্ছে থাকলেও লিপস্টিক পড়া হচ্ছে না অনেকের। এদিকে ঘরে পড়ে পড়ে নষ্ট হচ্ছে প্রসাধনী দ্রব্য। দোকানে গিয়ে একটি একটি করে লিপস্টিক দেখে দেখে পরখ করে কেনার কথা এখন ভাবতেই পারছে না কেউ।

বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই অনলাইনে অর্ডার করতে দ্বিধা বোধ করছেন অনেকে। কোন রংটি আপনার মুখে মানাবে, কি করে আপনি বুঝবেন? এই চিন্তা করে অনলাইনে অর্ডার দেওয়া হচ্ছে না আর। কিন্তু এবার সব মুশকিল আসান হয়ে যাবে। অভিযোজন তথ্য আপনার কাছে নিয়ে এসেছে এই সমস্ত সমস্যার সমাধান। অনলাইনে লিপস্টিকের মত কোন প্রসাধনী দ্রব্য কেনার আগে আপনি সেটি তার ঠোটে প্রয়োগ করে দেখে নিতে পারেন। কোনটা আপনাকে বেশী মানাচ্ছে, সেটি যাচাই করে নিয়ে তারপর আপনি কিনুন আপনার পছন্দসই লিপস্টিক। শুধুমাত্র লিপস্টিক না, হেলথকেয়ার বা মেকাপের বিভিন্ন দ্রব্য দোকানে গিয়ে দেখে পরখ করতে হবেনা আর আপনাকে।

এই প্রসঙ্গে লরিয়েল ইন্ডিয়া সংস্থার ডিজিটাল অফিসার অনিল চিল্লা জানিয়েছেন, এখন যে স্পর্শহীন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে সারা বিশ্বজুড়ে। তার ফলে গ্রাহকরা পুরনো কেনাকাটা স্বভাব থেকে সরে গিয়ে অন্য কিছু ভাবনা চিন্তা করা শুরু করেছেন। আগে বেশিরভাগ গ্রাহক দোকানে গিয়ে জিনিসপত্র পরখ করে নিয়ে কিনতে ভালোবাসতেন। কিন্তু মহামারীর পরে ১৮ শতাংশ মানুষ এখন অন্য পরিস্থিতিতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

অনলাইন কসমেটিক্স ব্র্যান্ড সুগার এর মতে, রিয়ালিটি প্রয়োগের ফলে গ্রাহকদের কাছে প্রসাধনী কেনাকাটার বিষয়টি আরো মজাদার হয়ে উঠেছে। সুগার কসমেটিকসের সী ইউ ভিনিতা সিং বলেন যে, অনলাইন কেনাকাটার ফলে গ্রাহকদের কাছে কেনাকাটা বিষয়টি আরও সহজ হয়ে উঠছে। লিপস্টিকের কোন সেড তার জন্য উপযুক্ত, সেটি জানার পরেও একের পর এক শেডের লিপস্টিক দেখতে হতো। এরপর হাতের উপর সেই রঙ্গলি দেখা এবং মুছে ফেলার মধ্যে অনেকটা সময় চলে যেত। এক্ষেত্রে সেই অসুবিধা টি আর নেই”।

“গ্রাফিক্সস্টরি”নামের এই প্রযুক্তি চালিত বিজ্ঞাপন স্টুডিও যা বিভিন্ন ব্র্যান্ডকে অগমেন্টেড রিয়েলিটি পরিষেবা সরবরাহ করে। সংস্থার বিপণন বিভাগের প্রধান অর্ণব সামন্ত বললেন যে, যারা এটির মাধ্যমে কেনাকাটা করেন, তাদের বাড়িটিকে ভার্চুয়াল ল্যান্ডস্কেপে রূপান্তরিত করা হয়।