হস্তরেখা নয় এবার হাতের কব্জিরেখা দিয়েও ভবিষ্যৎ কেমন হবে তা আগাম জানা যাবে

15
হস্তরেখা নয় এবার হাতের কব্জিরেখা দিয়েও ভবিষ্যৎ কেমন হবে তা আগাম জানা যাবে

সমুদ্রশাস্ত্রে হস্তরেখা নির্ণয় করা একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় আগেকার যুগের এর প্রচলন প্রচুর পরিমাণে ছিল। বর্তমান যুগেও অনেকে হস্তরেখা এই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে। বর্তমান যুগের প্রচলন বেশি নেই কিন্তু অনেকে এখনও এই জিনিসটিকে মেনে চলেন। কিন্তু অনেকেরই অজানা যে হাতের কব্জিরেখা দিয়েও কিছু জিনিস নির্বাচন করা যায়। এই কব্জিরেখাগুলিকে মনিবদ্ধ রেখা বলা হয়। কথা তেমনি মধ্যরেখা দিও আমরা আমাদের ভবিষ্যৎ কেমন হবে তা আগাম জানতে পেরে যাই। নেওয়া যাক মণিবন্ধ রেখা কি রকম থাকলে কি ফল দিতে পারে।

মনিবদ্ধ রেখা যদি উদ্ধত হয় এবং সেটি ক্রমশ নিচের দিকে নেমে যায় তাহলে সেই মনিবদ্ধ রেখাকে শুভ বলে বিবেচিত করা যায়। আবার কারোর যদি মনিবদ্ধ রেখা ত্রিভুজ আকৃতির হয়ে থাকে তাহলে সে নীতিপরায়ন হয় এবং তার সাথে সাথে নানা ধরনের গুপ্তবিদ্যায় পারদর্শী হয়। আবার কারোর যদি তিনটি মনিবদ্ধ রেখা থাকে তাহলে তাদের মধ্যে অভিমান বেশি থাকে এবং সেই কারণে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। পুরুষের ক্ষেত্রে কব্জির মনিবদ্ধ রেখা যদি শৃঙ্খলা পরায়ন হয় তাহলে তা খুবই শুভ বলে বিবেচিত হয় এরা জীবনে নাম যশ খ্যাতি সমস্তকিছু পায়।

কিন্তু মহিলাদের ক্ষেত্রে ফলাফল সম্পূর্ণ ভিন্ন বিবাহিত জীবন খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কোন ব্যক্তির কব্জিতে মণিবন্ধ রেখা যদি বুধ পর্বতের দিকে অগ্রসর হয় তাহলে সেই ব্যক্তি খুবই ধনী হন। আবার মনিবদ্ধ রেখা যদি শুক্র পর্বতের দিকে যায় তাহলে সেই ব্যক্তি খুবই খোলামেলা স্বভাবের হয়ে থাকে। কোন ব্যক্তি যদি মণিবদ্ধ রেখা রাহু পর্বতের দিকে যায় তাহলে বুঝে নিতে হবে সেই ব্যক্তি কঠিন সংঘর্ষের মধ্য দিয়েই সফলতা লাভ করবে।