পাকিস্তান ছাড়া কোনো দেশই কিনতে চাইছে না চীনের হাতিয়ার

23
পাকিস্তান ছাড়া কোনো দেশই কিনতে চাইছে না চীনের হাতিয়ার

চীন সবার নিশানায় চলে এসেছে গোটা বিশ্বে করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে। এমনকি চীনের আক্রমণাত্বক মনোভাবের কারণে অনেক ছোট ছোট দেশই ড্রাগনের সঙ্গে নিজেদের সম্পর্ক শেষ করছে।

চীনের থেকে অনেক দেশেই হাতিয়ার এবং অন্যান্য সামগ্রীর আমদানি কমিয়ে দিয়েছে। এখন অবস্থা এতটাই শোচনীয় হয়ে গিয়েছে যে, পাকিস্তান ছাড়া আর কেউই চীনের উপর আর ভরসা করতে পারছে না। সেই কারণে তাঁরা চীনের থেকে হাতিয়ার হোক আর লড়াকু বিমান কিছুই কিনছে না।

ফরেন পলিসির রিপোর্ট অনুযায়ী বলা হয়েছে , গত মাসে ফিলিপিন্সে চীনের অতিক্রমণের পর এখন বেশীর ভাগ দেশই চীনের সঙ্গে অংশীদারিত্ব করার থেকে ঘাবড়াচ্ছে। যদিও, চীনের সবথেকে প্রিয় বন্ধু পাকিস্তান বেজিংয়ের থেকে হাতিয়ার এবং অন্যান্য সামগ্রী কেনার জন্য এখনও উৎসুক।

গত মাসে চীনের নৌসেনার জাহাজ অনুমতি ছাড়াই ফিলিপিন্সের সীমানায় ঢুকে পড়েছিল। রিপোর্ট অনুযায়ী, চীন লাদাখে বাস্তবিক নিয়ন্ত্রণ রেখায় ভারতের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়ার পর থেকে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক টলমল করছে। ভারত হামেশাই চীনের বদলে অন্য দেশগুলির থেকে হাতিয়ার আমদানি করে। ভিয়েতনামও ভারতের দেখানো পথেই চলে। ভিয়েতনাম আর চীনের মধ্যে সামুদ্রিক সীমানা নিয়ে সমস্যা বেড়েই চলেছে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, চীন এখন তাঁদের লড়াকু বিমান বিক্রি করতে চাইছে কিন্তু মালয়েশিয়া আর ইন্দোনেশিয়াও তাঁদের থেকে কিছু কিনতে চাইছে না। হাতিয়ার বিক্রির জন্য চীন এখন কেবলমাত্র পাকিস্তানের উপরেই নির্ভরশীল।