বিশ্বের সবথেকে ধনী পরিবারের বউ হয়েও মা হওয়ার থেকে বঞ্চিত ছিলেন নিতা আম্বানি

187
বিশ্বের সবথেকে ধনী পরিবারের বউ হয়েও মা হওয়ার থেকে বঞ্চিত ছিলেন নিতা আম্বানি

পৃথিবীর সমস্ত সম্পত্তি একদিকে হলেও মা-বাবার আনন্দ অন্যদিকে। পৃথিবীর কোন সম্পত্তি কে মা হবার আনন্দে সঙ্গে তুলনা করা যায় না। ভারত বর্ষ তথা বিশ্বের সবথেকে ধনী পরিবারের বউ হলেন নিতা আম্বানি। তিনি একবার ইশারা করলে বিশ্বের দামি থেকে দামি জিনিস তার পায়ের কাছে এনে দেবেন তার স্বামী। কিন্তু ভাগ্যের এমনই পরিহাস, গর্ভবতী হওয়ার জন্য অনেক কষ্ট করতে হয়েছে নিতু আম্বানি কে। মাত্র ২৩ বছর বয়সে তিনি বিয়ে করেন মুকেশ আম্বানি কে। বিয়ের পর তিনি জানতে পারেন যে তিনি কখনও মা হতে পারবেন না। স্বাভাবিকভাবেই ভেঙে পড়েন নিতু আম্বানি এবং মুকেশ আম্বানি।

কিন্তু এমত অবস্থায় তিনি তার স্বামীকে সব সময় তার পাশে পেয়েছিলেন। অনেক ডাক্তারের কাছে গিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর যখন বুঝতে পারলেন যে তার মা হবার কোন সম্ভাবনা নেই, তখন তারা সিদ্ধান্ত নিলেন যে আইভিএফ পদ্ধতির মাধ্যমে তারা সন্তানকে জন্ম দেবেন। তারপর থেকে শুরু হয় নিতু আম্বানির একটি কঠিন লড়াই। প্রায় সাত বছরের কঠিন লড়াই করার পর তিনি অবশেষে গর্ভবতী হতে পেরেছিলেন। এতকিছুর পরেও তখন তারা জানতে পারেন যে তাদের গর্ভে আসতে চলেছে যমজ সন্তান, তাদের সমস্ত দুঃখ কষ্ট দূর হয়ে যায় নিমিষে।

১৯৯১শালী ইশা এবং আকাশ দুই যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছিল নিতা আম্বানি। দুজনেই সময়ের আগে জন্মগ্রহণ করেছিল বলে তাদের প্রচন্ড যত্নে এবং সাবধানে রাখার পরামর্শ দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। যেহেতু ভগবানের তরফ থেকে ঢাকার কোনদিন অভাব ঘটে নি, তাই দুই ছেলে এবং মেয়েকে খুব যত্নে মানুষ করেছেন মুকেশ আম্বানি এবং নিতা আম্বানি। আজ তারা অনেক বড় হয়ে গেছে। তবে সেদিনের সেই কষ্টের কথা কোনদিন ভোলেননি এই আম্বানি দম্পতি।