পেনশনভোগীদের Annual Life Certificate জমা নিয়ে নয়া বিজ্ঞপ্তি! দেখে নিন

13
পেনশনভোগীদের Annual Life Certificate জমা নিয়ে নয়া বিজ্ঞপ্তি! দেখে নিন

সরকারী পেনশনভোগীদের অস্তিত্ব প্রমাণ করতে প্রতি বছর Annual Life Certificate জমা দিতে হয়। প্রতারণামূলক কার্যকলাপ এড়াতে এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে। পেনশনভোগী কল্যাণ বিভাগ সম্প্রতি এই সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে

সরকারী পেনশনভোগীদের তাদের অস্তিত্ব প্রমাণ করতে প্রতি বছর তাদের Annual Life Certificate বা জীবন প্রমাণ পত্র জমা দিতে হয় যাতে তাদের সময়মত পেনশন পেতে কোনো অসুবিধা না হয়। মূলত পেনশনের অর্থ সংক্রান্ত বিষয়ে যে সমস্ত প্রতারণা হয় সেসব এড়াতেই পেনশনভোগী কল্যাণ বিভাগ থেকে এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে।

প্রতি বছর 1 নভেম্বর থেকে 30 নভেম্বরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে অবশ্যই নিকটস্থ ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে তাদের জীবন শংসাপত্র জমা দিতে হয়। এদিকে, যাদের বয়স 80 বছরের বেশি তারা শংসাপত্র জমা দেওয়া শুরু করতে পারেন 1 অক্টোবর থেকে। ডকুমেন্টেশন সম্পূর্ণ করার জন্য তারা দুই মাস সময় পান ।

সম্প্রতি পেনশন ও পেনশনভোগী কল্যাণ বিভাগ থেকে এই সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে যে পেনশনাররা তাদের ব্যক্তিগত সুবিধা এবং স্বাচ্ছন্দ্যের ভিত্তিতে বিভিন্ন উপায়ে জীবন শংসাপত্র জমা দিতে পারে।

চলুন দেখে নেওয়া যাক কি কি সেই উপায়।

এবার অনলাইনেই life certificate জমা দেওয়া যাবে। পেনশনাররা জীবন প্রমাণ পোর্টাল (https://jeevanpramaan.gov.in/) ব্যবহার করে জমা দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে প্রথমেই পোর্টাল থেকে জীবন প্রমাণ অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। এরপরে , তার আঙুলের ছাপ জমা দেওয়ার জন্য একটি UIDAI- বাধ্যতামূলক ডিভাইসের প্রয়োজন হবে, যা OTG কেবলের মাধ্যমে মোবাইল ফোনের সঙ্গে সংযুক্ত করা যায়।

UIDAI বাধ্যতামূলক ফিঙ্গারপ্রিন্ট ডিভাইসের তালিকা জীবন প্রমাণ পোর্টালে উপলব্ধ রয়েছে । যেকোন ই-কমার্স ওয়েবসাইট থেকে এগুলো কেনা যাবে । এছাড়াও , অ্যাপে রেজিস্ট্রেশনের জন্য তাকে পেনশনভোগীর আধার নম্বর , মোবাইল নম্বর এবং ইমেল আইডি প্রয়োজন হবে । এর পরে , ডিজিটাল life certificate জমা দেওয়ার জন্য অ্যাপে যা যা বলা থাকবে তা অনুসরণ করতে হবে।

এবার life ceritificate জমা দেওয়ার আরেকটি জনপ্রিয় উপায় হল নিকটতম পেনশন প্রদানকারী ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে যাওয়া। কেউ ব্যাঙ্ক কাউন্টারে উপলব্ধ life ceritificate পূরণ করতে পারেন এবং অবিলম্বে প্রক্রিয়াকরণের জন্য পাঠাতে পারেন । যদি আপনি , একটি ব্যাঙ্কে গিয়ে তা করতে আপত্তি না করেন , তবে এটি একটি দ্রুত এবং ঝামেলামুক্ত অপশন ৷

যদি উপরের দুটি বিকল্প আপনার জন্য উপযুক্ত না হয়, তাহলে ডোরস্টেপ ব্যাঙ্কিং ( DSB ) এর মাধ্যমেও এই কাজ সম্ভব। এটি 12টি বড় পাবলিক সেক্টর ব্যাঙ্কের সঙ্গে জোটবদ্ধ। আপনি যদি ব্যাঙ্কের মোবাইল অ্যাপ, ওয়েবসাইট বা টোল-ফ্রি নম্বরের মাধ্যমে একটি অনুরোধ করেন তবে একজন ডোরস্টেপ ব্যাঙ্কিং এজেন্ট আপনার বাড়িতে চলে আসবেন ।

পোস্টম্যানের মাধ্যমে ডিজিটাল লাইফ সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার জন্য ডোরস্টেপ পরিষেবা চালু করা হয়েছে 2020 সালের নভেম্বরে ডাক বিভাগ এবং ইলেকট্রনিক্স ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ( Meity ) তরফে। যেকোন পেনশনভোগী Google Playstore থেকে Postinfo অ্যাপ ডাউনলোড করে এই সুবিধা পেতে পারেন ।

যদি জীবন শংসাপত্রে একজন মনোনীত অফিসারের স্বাক্ষর থাকে তাহলে সেন্ট্রাল পেনশন অ্যাকাউন্টিং অফিস ( CPAO )-এ পেনশনভোগীকে শারীরিকভাবে উপস্থিত থাকতে হয় না। CPAO দ্বারা স্বীকৃত এই ধরনের কর্তাদের তালিকা তাদের ওয়েবসাইটে থেকে দেখে নেওয়া যেতে পারে।