মহিষাসুরমর্দিনী হিসেবে সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায় কে আজও স্মরণ করে নেটিজেনরা

10
মহিষাসুরমর্দিনী হিসেবে সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায় কে আজও স্মরণ করে নেটিজেনরা

সময়ের সাথে সব কিছুই পালটে গেছে, মানুষ সেই সময়ের সাথে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে খুব সহজেই সেই কারণেই মানুষ আজ টিকে রয়েছে যুগ যুগ ধরে। এত কথা বলার কারণ কিন্তু একটাই। আসলে আমাদের হাতে আর বেশী সময় নেই। পুজো প্রায় ঘাড়ের কাছেই এসে গেছে। তার তোড়জোড় কিন্তু দারুণ ভাবে শুরু হয়ে গেছে ইতিমধ্যেই। তবে পুজোর আগে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে জিনিসটি বাঙ্গালীর কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ সেটা হল মহালয়া। ভোর হতেই বীরেন্দ্র কৃষ্ণভদ্রের সেই গলায় বেজে ওঠে মহালয়ার সুর, যেটার প্রতি প্রতিটা বাঙ্গালী দারুণভাবে দুর্বল।

একটা সময় সবাই রেডিওতে এই মহালয়া শুনত, তার পরে সেটা প্রথম দুরদর্শনে দেখানো হতো। আমরা একাধিক অভিনেত্রীদের নিয়ে মহালয়া অনুষ্ঠান দেখেছি। কোন অভিনেত্রী এবার মহিষাসুর মর্দিনী করবে তা নিয়ে জল্পয়া কল্পনার কিন্তু শেষ থাকে না। বিভিন্ন চ্যানেল বিভিন্ন ভাবে তাদের প্রোমো দেখায় মহালয়ার আগে, তার পরে তাদের রহস্য ফাস করে বেড়িয়ে আসা আমাদের সামনে দেবী দূর্গারুপী বিভিন্ন অভিনেত্রীরা। কিন্তু আমি যে সময়কার কথা বলছি তখন ছিল না এতো প্রতিযোগিতা, ছিল না এতো আড়ম্বর, একেবারে স্বাভাবিকভাবেই হতো মহিষাসুরমর্দিনী। যেটার ভূমিকায় আমরা দেখতে পেতাম সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায় কে।

তিনিই কিন্তু প্রথম দূর্গা রুপে আমাদের সামনে ধরা দিয়েছিল, যার কারণেই তাকে দারুণ ভাবে গ্রহণ করেছিল মানুষ। তখন না ছিল বাহারী সাজ, না ছিল ভিএফ এক্স। কিন্তু তাও তাকে দূর্গা রুপে দারুণ মানাতো, তার চোখের দীপ্তি তেজ যেন ঠিকরে বেরিয়ে আসত। তিনি ১৯৯৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত এই মহিষাসুরমর্দিনী চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তার এই রুপে অনেকেই মুগ্ধ হয়ে গেছে, যেই কারণে তার জনপ্রিয়তা দারুণ ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছিল। তবে এখন তিনি কোথায় আছেন? তার খোজ এখন কে রাখে? খোজ নিয়ে দেখা গেছে সেই সংযুক্তা এখন কানাডার বাসিন্দা। আমেরিকা ও কানাডার বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে তিনি নাচের অনুষ্ঠান করে থাকে। তার নাকি সেখানে একটি নাচের স্কুলও রয়েছে।