মায়রা হয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চার বিষয়বস্তু! জানুন কি এই মায়রা?

9
মায়রা হয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চার বিষয়বস্তু! জানুন কি এই মায়রা?

মায়রা হলো একটি অনুষ্ঠান বা রীতি রাজস্থানের নাগাউর জেলায় খুবই জনপ্রিয় একটি অনুষ্ঠান। এ নিয়ে একটি প্রচলিত ইতিহাসও আছে। তা প্রায় সেই মুঘল আমলের, যেখানে রাজস্থানের ধর্মরাম জাট ও গোপালরাম জাট তখনকার মুঘল বাদশার জন্য কর সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছিলেন দিল্লির দরবারে।

এমন সময় তাঁদের রাস্তায় এক মহিলার সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় যেখানে তাঁরা দেখেন মহিলাটি অনবরত আক্ষেপ করছেন। কিন্তু কি নিয়ে এই আক্ষেপ তার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান যে, তার সন্তানের বিয়েতে মায়রা ভরার জন্য কেউ নেই অর্থাৎ তার কোন ভাই নেই, যে মায়রা ভরবে।

সেই আক্ষেপেই তাঁর এই দুঃখ বা বিলাপ। সে কথা শুনে ধর্মরাম ও গোপালরাম তাদের সঞ্চিত কর এবং সামগ্রী দিয়ে সেই মহিলার মায়রা ভরে দেন। তবে অবশ্য তাদের এই উদারনৈতিক মনোভাবের জন্য পরবর্তীকালে বাদশার থেকে কোন রকম কোন শাস্তি পেতে হয়নি এটাই রক্ষে। তবে সম্প্রতি যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে সেটি নাগাউর জেলার দেশবাল গ্রামনিবাসী সিপু দেবীর ছেলের বিয়ের ভিডিও। যেখানে দেখা গেছে তিন মামা মিলে তার ভাগ্নের মায়রা ভরেছেন।

দুটি বিশাল ঝুড়িতে টাকা ভর্তি করে নিয়ে আসেন তাঁরা। দশ টাকার নোটে ভর্তি ছিল ২ টি ঝুড়িই। ৮ জন মিলে ৩ ঘণ্টারও বেশি সময় লেগেছে সেগুলি গুনতে। সর্বশেষে গুণে পাওয়া গেল প্রায় ৬ লাখ ১৫ হাজার টাকার মায়রা দিয়েছেন মামারা। যদিও সেই ভিডিওটি ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে, এহেন অনুষ্ঠান বাড়িকে নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই সমস্ত সোশ্যাল নেটিজেনদের।