অর্ধেকের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী ডিসঅর্ডারে ভুগছে, সম্প্রতি প্রকাশিত গবেষণার রিপোর্ট

6
অর্ধেকের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী ডিসঅর্ডারে ভুগছে সম্প্রতি প্রকাশিত গবেষণার রিপোর্ট

করোনা পরিস্থিতিতে সর্বদা আমরা বিভিন্ন রোগীর খোঁজ খবর রাখার চেষ্টা করেছি তাদের শারীরিক পরিস্থিতির জানার চেষ্টা করেছি। কিন্তু যারা এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে সর্বদা সেবা দিয়ে গেছে তাদের কথা ভাবি নি, ঘন্টার পর ঘন্টা দিনের-পর-দিন  পিপিই কিট মধ্যে ঢুকে বছর কাটিয়ে দিয়েছে, ঘামে একেবারে শরীর ভিজে চুপচুপে।

তাদের লক্ষ্য একটাই রোগীদের সুস্থ করে তোলা, এন্টিবায়োটিক প্রদান করা এমনকি রোগীদের হাসিখুশি রাখার জন্য কোমড় পর্যন্ত দোলানো। তাদের নিজেদের কাজকর্ম দায়িত্ব বাদেও পিপিই কিট পড়ে রোগীদের খুশি করার কাজে মেতেছিলেন তারা। কিন্তু মনে রাখতে হবে তারাও তো মানুষ, সারাদিনের এই ধকল সহ্য করে রোগীর ঘরে এক কোণে শুয়ে বিশ্রাম করা।

আমরা সবার খোঁজ রাখলেও তাদের খোঁজ কিন্তু নেই না, তারা কেমন আছে? এই নিয়ে সম্প্রতি গবেষণা করেছে Journal of Psychiatric গবেষকরা। যারা এই করোনাকালে রোগীদের সর্বদা পাশে পাশে থেকেছেন তাদের সেবা যত্ন করেছেন, রিপোর্টার ধরা পড়েছে তারা কেউ ভালো নেই অর্ধেকের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী মানসিক দিক থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। যার থেকে বাঁচতে অ্যালকোহল এমনকি আত্মহত্যার পথ পর্যন্ত বেছে নিয়েছে।

রিপোর্ট দেখে বিভিন্ন স্বাস্থ্য মহল একেবারে অবাক ও ভীত। বিশেষ করে যারা আইসিইউতে কর্মরত অবস্থায় ছিল, তাদের উপরেই সমীক্ষা করে দেখা গেছে, পোস্ট ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিসঅর্ডারে ভুগছেন তারা। যা থেকে বাঁচতে মদ্যপান এমনকি মৃত্যুর পথ পর্যন্ত বেছে নিয়েছে তারা।