করোনার কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৩০০ এরও বেশী সাংবাদিকঃ সমীক্ষা

9
করোনার কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৩০০ এরও বেশী সাংবাদিকঃ সমীক্ষা

মহামারীতে প্রথম সারিতে দাঁড়িয়ে লড়াই করে চলেছেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী এবং পুলিশ। তবে অনেক ক্ষেত্রেই আমরা হয়তো ভুলে যাই আরো এক গোত্রের কথা যারা প্রথম সারিতে দাঁড়িয়ে আমাদের প্রতিনিয়ত সাবধান করে যাচ্ছেন। তারা হলেন সংবাদমাধ্যম। নিজের প্রাণ কে তুচ্ছ করে প্রতিদিন রাস্তায় বেরিয়ে খবর সংগ্রহ করা এই সাংবাদিকের কথা আমরা অনেকেই মনে করিনা। তাদের টিকাকরণের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে অনেক পরে। তার আগেই বহু সাংবাদিক মহামারীর কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন

সম্প্রতি একটি পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে যে, গত এপ্রিল মাসে ৩০০ এরও বেশী সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে মহামারীতে। দিল্লির পারসেপশন স্টাডিজ নামে একটি সংস্থা সম্প্রতি একটি রিপোর্টে উল্লেখ করে বলেছেন যে, ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে ১৬ মে ২০২১ পর্যন্ত ২৩৮ জন সাংবাদিক মারা গিয়েছেন। এগুলো শুধুমাত্র নিশ্চিত করে জানা গেছে। এর বাইরে এমন অনেক ঘটনা আছে যেগুলি নথিভূক্ত করা হয়নি।

পার্সেপশন সার্জারি ডক্টর কোটা নীলিমা দাবি করেছেন যে, ৩০০ রও বেশি সাংবাদিক করোনায় মারা গেছেন। যারা রাস্তায় বেরিয়ে অথবা অফিসে বসে কাজ করেছেন তারা যারা রিপোর্টার ফ্রিল্যান্সার এবং চিত্রসাংবাদিক রয়েছেন তাদের সবাইকে ধরা হয়েছে।

গত বছর তেলেঙ্গানা এবং উত্তরপ্রদেশে সব চেয়ে বেশি সাংবাদিক প্রাণ হারিয়েছেন। উত্তরপ্রদেশে গত এক বছরে ৩৭ জন সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে। তেলাঙ্গানায় মৃত্যু হয়েছে ৩৯ জন সাংবাদিকের। এর পরেই রয়েছে দিল্লি। সেখানে ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহারাষ্ট্রের ২৪ জন সাংবাদিক, ওড়িশার ২৬ জন এবং মধ্যপ্রদেশের ১৯ জন সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে।

এই রিপোর্টে আর একটি দিক উল্লেখ করা হয়েছে। মৃত সাংবাদিকদের ৩১ শতাংশ ছিলেন ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সি। ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সি সাংবাদিকের মৃত্যুর হার ছিল ১৫ শতাংশ। এবং ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সি সাংবাদিকের ক্ষেত্রে সংখ্যাটা ১৯ শতাংশ। ২৪ শতাংশ সাংবাদিক মারা গিয়েছেন যাঁদের বয়স ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ছিল। এবং মৃত সাংবাদিকদের মধ্যে ৭১ বছর বয়সি ছিলেন ৯ শতাংশ।