গৃহবন্দি দশা থেকে মুক্তি পেতেই জাতীয় পতাকা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন মেহেবুবা মুফতি

5
গৃহবন্দি দশা থেকে মুক্তি পেতেই জাতীয় পতাকা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন মেহেবুবা মুফতি

“কাশ্মীরের জন্য নির্ধারিত পতাকা ফেরত না দিলে, জাতীয় পতাকাকে সম্মান জানানো সম্ভব নয়”, সাফ জানিয়ে দিলেন উপত্যকা অঞ্চলের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি। গত বছর কাশ্মীরের উপর‌ থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ করা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের ওপর ক্ষুব্ধ পাকিস্তানের বহু রাজনৈতিক নেতা-নেত্রী। জাতীয় পতাকা নিয়ে মেহেবুবা মুফতির এহেন অসন্তোষের কারণে স্বভাবতই তার বক্তব্য ঘিরে বিতর্ক কি শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

গতবছর ৩৭০ ধারা বিলোপের পর উপত্যকা অঞ্চলে অশান্তি এড়াতেবিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের গৃহবন্দী করে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে বিগত এক বছর ধরে গৃহবন্দি ছিলেন মেহেবুবা মুফতি। কিছুদিন হলো গৃহবন্দি দশা থেকে মুক্তি পেয়েছেন তিনি। মুক্তি পেতেই পুনরায় রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করে দিয়েছেন মেহবুবা। ৩৭০ ধারা বিলোপ প্রসঙ্গে ক্ষোভ উগরে দিয়ে ভারতের জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করলেন তিনি।

উল্লেখ্য, প্রায় এক বছর পর পুনরায় রাজনৈতিক জীবনে ফিরে এসেই কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা পুনরায় ফেরত পাওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যেই ন্যাশনাল কনফারেন্সসহ উপত্যকা অঞ্চলের বিজেপি বিরোধী শিবির গুলি সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়েছেন মেহবুবা। কাশ্মীরের কেন্দ্রীয় সরকার বিরোধী জোটের নেতৃত্বে রয়েছেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ফারুক আব্দুল্লাহ।

মেহেবুবা মুফতির পাশাপাশি গত এক বছর ধরে গৃহবন্দি দশায় কাটিয়েছেন কাশ্মীর আরো দুই মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ এবং তার পুত্র ওমর আব্দুল্লাহ। এ ছাড়াও বহু রাজনৈতিক নেতাকর্মীকে গৃহবন্দি করে রেখেছিল কেন্দ্র। সম্প্রতি তাদের প্রত্যেককেই গৃহবন্দি দশা থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।