ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য আর বাধ্যতামূলক নয় অঙ্ক এবং কেমিস্ট্রি

30
ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য আর বাধ্যতামূলক নয় অঙ্ক এবং কেমিস্ট্রি

অঙ্ক ছাড়াই এবার করা যাবে ইঞ্জিনিয়ারিং; বাধ্যতামূলক নয় কেমিস্ট্রিও। অঙ্ক ছাড়াই এখন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের এক তৃতীয়াংশ কোর্স করা যাবে।

অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন (AICTE) জানিয়েছে, আর্কিটেকচার, বায়ো-টেকনোলজি, ফ্যাশন টেকনোলজির মতো বিষয়গুলি পড়ার জন্য দ্বাদশ শ্রেণিতে অঙ্ক না থাকলেও চলবে। চলতি শিক্ষাবর্ষের নতুন গাইডলাইনে কাউন্সিল কিছু কিছু বিষয়ে পড়া এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কেমিস্ট্রিও বাধ্যতামূলক নয় বলে জানিয়েছে।

কম্পিউটার সায়েন্স, ইলেকট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং ইত্যাদি পড়ার জন্য দ্বাদশে রসায়ন না রাখলেও চলবে।ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের স্নাতক স্তরের ২৯টি কোর্সের মধ্যে ১০টির জন্যেই অঙ্ক বাধ্যতামূলক নয় বলে ঘোষণা করা হয়েছে। ডিপ্লোমার ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য।

বলা হয়েছে ইনফরমেশন টেকনোলজি, বায়োলজি, ইলেকট্রনিক্স, বায়ো-টেকনোলজি, কম্পিউটার সায়েন্স, এগ্রিকালচারের মতো ১৪টি বিষয়ের মধ্যে দ্বাদশে যে কোনও একটি পড়লেই ভবিষ্যতে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে পারবে ছাত্রছাত্রীরা। গত বছরেও সমস্ত ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের জন্যে অঙ্ক আর পদার্থবিদ্যাকে অপশনাল ঘোষণা করেছিল কাউন্সিল।

সেসময় শিক্ষামহলে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছিল এই সিদ্ধান্তের। এবছর তাই নির্দিষ্ট কিছু কোর্সে অঙ্ক আর কেমিস্ট্রি অপশনাল করা হয়েছে। কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অনিল ডি সহস্রবুদ্ধে বলেছেন, ২০২০ সালের জাতীয় শিক্ষানীতি অনুযায়ী স্কুলের শিক্ষা ব্যবস্থা ৫+৩+৩+৪ রীতিতে বিভক্ত। শেষ চারটি বছর আর্টস, সায়েন্স বা কমার্স স্ট্রিমের জন্য নয়। এই সময় পড়ুয়ারা লিবারাল আর্টস গোছের স্ট্রিম বেছে নেবেন। এতে দ্বাদশের পর ইচ্ছেমতো নানা ধরনের প্রোগ্রামে অংশ নিতে পারবেন পড়ুয়ারা।

কিন্তু শিক্ষাবিদরা কাউন্সিলের এই সিদ্ধান্তের জোর সমালোচনা করেছেন। অনেকেই বলছেন এতে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার মান খারাপ হবে এবং ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে যাঁরা যাবেন তাঁদের মানও ঠিক থাকবে না। অবশ্য কেউ কেউ আবার এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।

তাঁরা বলছেন, এতে পড়াশোনায় কিছুটা নমনীয়তা আসবে। যাঁরা দ্বাদশে প্রয়োজনীয় বিষয় বাছেননি, এই সিস্টেমের মাধ্যমে প্রয়োজনে তাঁরাও প্রফেশনাল ডিগ্রি প্রোগ্রামে অংশ নিতে পারবেন বলে মনে করছেন কেউ কেউ।