চার বছর অন্তর অন্তর বিয়ে! ষষ্ঠতম বিয়ের আগেই গ্রেপ্তার এক ব্যাক্তি

11
চার বছর অন্তর অন্তর বিয়ে! ষষ্ঠতম বিয়ের আগেই গ্রেপ্তার এক ব্যাক্তি

বিয়ে হলো এমন একটি বন্ধন, যেখানে দুটি মানুষ একে অপরের সঙ্গে সারা জীবন থাকার জন্য শপথ নেয়। বিয়ে হওয়ার পর স্বামী এবং স্ত্রী দুজনেরই জীবনের একটাই লক্ষ্য একে অপরের পাশে থেকে গোটা জীবনটা কাটিয়ে দেওয়া। কিন্তু এখন অনেকেই স্ত্রী বা স্বামী না থাকলে অথবা বিবাহবিচ্ছেদ ঘটলে পরে সিদ্ধান্ত নেন দ্বিতীয় আর একবার বিয়ে করার। একটা বা দুটো বিয়ে করা এখন সকলেই শোনে। এমন কি কেউ শুনেছেন যে একজন ব্যক্তি চার বছর অন্তর অন্তর বিবাহ করে? একজন ব্যক্তি তাও আবার চার বছর অন্তর অন্তর বিয়ে করে, ভাবুন তো এটা আবার কেমন, কিন্তু এই ধরনের ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের কানপুরে।

কানপুরের এক ব্যক্তির নাম অনুজ চেতন কাঠারিয়া, যে পাঁচবার ইতিমধ্যেই বিয়ে করে ফেলেছে, এখন ছয় নাম্বার বিয়ে করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল, কিন্তু সেই সময়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায় । পাঁচটি বিয়ের সাথে সাথে আরো অন্যান্য অনেক নারীর সাথে তার সম্পর্ক রয়েছে। এমন ঘটনা সামনে আসার পরেই প্রাথমিক তদন্ত করে দেখা যায় যে আগের সমস্ত স্ত্রীদের সঙ্গে এই সেই ব্যক্তি কোনরকমে আইনত বিচ্ছেদ করেনি এবং আইনত বিচ্ছেদ না করেই পরে আরো বিয়ে করেছে।

প্রত্যেককে ওই ব্যক্তি ঠকিয়েছেন এবং তাদের সাথে প্রতারণা করেছে। অনুজ ষষ্ঠ বিয়ে করার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল, তবে এই ষষ্ঠতম বিয়েই তার কাছে কাল হয়ে গেল, ষষ্ঠতম বিয়ের পিঁড়িতে তার বসা হলো না, তার আগেই পুলিশের হাতে ধরা পরল এই প্রতারক। ২০০৫ সালে প্রথম অনুজ বিয়ে করেছিল মৈনপুরী জেলার এক মহিলাকে। এরপর বিয়ের পাঁচ বছর হয়ে যাওয়ার পর মামলা শুরু হয় এবং তারপর ২০১০ সালে বরেলি জেলার এক মহিলাকে বিয়ে করে।

এরপর চার বছর পর আবার এক মহিলাকে বিয়ে করে। চতুর্থতম বিয়ে করেছিল অনুজ তার দ্বিতীয় স্ত্রীর এক তুতো বোনকে। এরপর চতুর্থ স্ত্রী আত্মহত্যা করে এবং এই আত্মহত্যা করার কারণ হলো অনুজের আগের বিয়ের সম্পর্কে জানার জন্য। পঞ্চম তম বিয়ে করে, পঞ্চমতম স্ত্রীকে যথেষ্ট মানসিক এবং শারীরিক ভাবে ওই ব্যক্তি অত্যাচার করত, যার পরেই পঞ্চম তম স্ত্রী অনুজের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে। পঞ্চম তম স্ত্রী অভিযোগ করে যে, নেট ওয়াল্ডে লাকি পান্ডে নামে, নিজেকে পরিচয় দিত এবং সমস্ত মহিলাকে ফাঁদে ফেলত। সবাইকে অনুজ বলত, যে পেশায় সে স্কুল শিক্ষক নয়তো আবার ব্যবসায়ী আবার অনেকের কাছে বলেছে সে একজন তান্ত্রিক। শুক্রবার প্রায় ৩২ জন মহিলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরে পুলিশ গ্রেপ্তার করে অনুজকে।