কালীপুজোর পরে চালু হতে পারে লোকাল ট্রেন, তবে সেখানে ওঠার অনুমতি পাবে না সকল যাত্রী

8
কালীপুজোর পরে চালু হতে পারে লোকাল ট্রেন, তবে সেখানে ওঠার অনুমতি পাবে না সকল যাত্রী

করোনা আবহে দীর্ঘ সাত মাস ধরে বন্ধ লোকাল ট্রেন পরিষেবা। যার ফলে সমস্যায় ভুগছেন নিত্যযাত্রীরা। যাত্রী সুবিধার্থে বেশ কিছু স্পেশাল ট্রেন এবং মেট্রো রেল পরিষেবা চালু করা হলেও, মহামারীর সংক্রমণের ভয়ে লোকাল ট্রেন চালু করতে ইতস্তত বোধ করছে সরকার। রেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে খবর, লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার আগে রাজ্য সরকারের অনুমতি প্রয়োজন। তবেই নির্দিষ্ট নিয়ম বিধি মেনে লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরু করা যেতে পারে।

উল্লেখ্য, কালীপুজোর পরে লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরু করা যাবে কিনা সে সম্পর্কিত আলোচনার জন্য এখন থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠক করতে চাইছে ভারতীয় রেল বোর্ড। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছিলেন, রাজ্য লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু হলে তার আপত্তি নেই। এদিকে রেল বোর্ডের দাবি, এ বিষয়ে রাজ্যের তরফ থেকে আগে অনুমতি পত্র দেওয়া হোক।

তবে, রাজ্য সরকারের সঙ্গে রেল দপ্তরের আলোচনা অনুযায়ী মেট্রো রেল চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়। পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজার সুনীত শর্মার বক্তব্য, মেট্রো রেলের যাত্রীসংখ্যা লোকাল ট্রেনের তুলনায় অনেক কম। লোকাল ট্রেনের ক্ষেত্রে ভিড় নিয়ন্ত্রণ সহজ হবে না বলেই মনে করছেন রেলওয়ে আধিকারিকরা। তাই রাজ্য সরকারের সঙ্গে কথা বলে দূরত্ব বিধি সম্পর্কিত ব্যবস্থা আগে ঠিক করতে হবে। তারপরে লোকাল ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে।

প্রাক্তন রেল আধিকারিক সুভাষ রঞ্জন ঠাকুর জানালেন, কেন্দ্রীয় সরকার লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করার বিষয়টি পুরোপুরি রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের উপরেই ছেড়েছেন। তবে লোকাল ট্রেন চালু করলেও সকল যাত্রীকে সেখানে ওঠার অনুমতি দেওয়া যাবে না বলেই মনে করেছেন তিনি। রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের কর্মচারী, সরকারী ও বেসরকারী স্বাস্থ্যকর্মী, পুরসভা, ব্যাঙ্ক, সাংবাদিক ও অন্যান্য জরুরি কর্মীদের পরিচয়পত্র দেখে তবেই ট্রেনে ওঠার অনুমতি দেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেছেন তিনি।