শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের নিয়ে এবার অভিনব পদক্ষেপ নিতে চলেছে শিক্ষা দপ্তর

31
শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের নিয়ে এবার অভিনব পদক্ষেপ নিতে চলেছে শিক্ষা দপ্তর

স্কুলে শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের উপস্থিতি নিয়ে অনেক অভিযোগ ওঠে বিভিন্ন সময়ে, তা আবার ফলাও করে প্রচার করা হয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ও কাগজে।অভিযোগের পাতা দিনকে দিন বড়ো হতেই থাকে।

তবে এবার অভিনব পদক্ষেপ নিতে চলেছে শিক্ষা দপ্তর।শিক্ষক ও শিক্ষিকারা যাতে সময় মতো স্কুলে আসেন ও সময়ের আগে যাতে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরতে না যান সেজন্য বায়োমেট্রিক পদ্ধতি শুরু হতে চলেছে।

রাজ্যের মধ্যে প্রথম বায়োমেট্রিক হাজিরা শুরু হতে চলেছে বাঁকুড়া জেলার পাঁচটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।এবার থেকে ওই স্কুল গুলিতে হাজিরা খাতায় আর সই করতে হবে না।এর পরিবর্তে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে হাজিরা দিতে হবে শিক্ষক ও শিক্ষিকাকে।

বহুদিন ধরেই অভিযোগ উঠে চলেছে যে,স্কুল গুলিতে সময়মতো উপস্থিত হতে পারেন না ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কারিগররা।আগে স্কুলে এসে হাজিরা খাতায় সই করতে হতো শিক্ষক শিক্ষিকাদের।কিন্তু হয়তো সেই বদনাম ঘুজতে চলেছে এবার থেকে।এই অভিযোগ থেকে বাঁচতে এবার এই পদ্ধতি কার্যকর করা হচ্ছে।

রাজ্যের মধ্যে বাঁকুড়া জেলায় প্রথম এই সিস্টেম চালু হচ্ছে।ওই জেলার শিক্ষক শিক্ষিকারা এই পদ্ধতিকে স্বাগত জানিয়েছে।প্রথম পর্যায়ে ওই জেলার 5 টি স্কুলকে চিহ্নিত করে বায়োমেট্রিক চালু হচ্ছে।ইতিমধ্যে নির্দেশ পৌঁছে গিয়েছে।

এই বায়োমেট্রিক মেশিনগুলো স্কুল কর্তৃপক্ষকেই কিনতে হবে।হাজিরার তথ্য প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের কাছে জমা দিতে হবে স্কুল কর্তৃপক্ষকেই।প্রাথমিক স্কুলে বায়োমেট্রিক হাজিরা চালু হবার পর সব হাইস্কুলে এই বায়োমেট্রিক মেশিন চালু করা হবে।