করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে মাস্ক কতটা সাহায্য করবে? জেনে নিন

45
করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে মাস্ক কতটা সাহায্য করবে?

করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৬০। এই পরিস্থিতিতে চীনের আরও একটি শহর তালাবন্ধ করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের উৎসস্থল চীনের উহান শহর।

এই উহান শহর থেকে ৮০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জেঝিয়াং প্রদেশের ওয়েংঝউ শহরকে এবার তালাবন্ধ করল চিন। এ নিয়ে চিনে মোট ১৯ টি শহরে তালাবন্ধ করা হল।

একধরনের জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে চিনে। প্রায় ৬ কোটি আটক হয়ে আছেন। বন্ধ হয়ে আছে যানবাহন। ঘরের মধ্যে আটকে আছে সেখানকার বাসিন্দারা।

যোগাযোগ বন্ধ হয়ে আছে আশেপাশের দেশগুলির সঙ্গে। এই ভয়াবহ করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচার জন্য বৈজ্ঞানিকরা মাস্ক পরে বেরোনোর পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু এই মাস্ক পরে কতটা বাঁচা যাবে করোনা ভাইরাসের হাত থেকে?

করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার প্রধান লক্ষণগুলি হল হল, শ্বাসকষ্ট, জ্বর, কাশি, নিউমোনিয়া ইত্যাদি। এই ভাইরাস শরীরের এক বা একাধিক অঙ্গ প্রত্যঙ্গ নিষ্ক্রিয় করে দেয়।

মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। এই অবস্থায় বিজ্ঞানীরা মাস্ক পরে নাক মুখ ঢেকে বেরোনোর পরামর্শ দিয়েছেন। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চিন ছাড়া অন্য কোনো দেশে মাস্ক পরে বেরোনোর পরিস্থিতি তৈরি হয়নি।

জর্জিয়ার আটলান্টার ইমোরি ইউনির্ভাসিটি স্কুল অব মেডিসিনের সহকারী প্রভাষক মেরিবেথ সেক্সট জানিয়েছেন, সার্জিক্যাল মাস্ক করোনা ভাইরাসকে আটকাতে পারে, কিন্তু নির্মূল করতে পারেনা।

এই মাস্ক সর্বাধিক পরিহিত, সস্তা এবং ডিসপোজেবল। এই মাস্ক সাধারণত হলুদ অথবা নিল রঙের হয়। এই মাস্ক রবারের মাধ্যমে কানের সঙ্গে শক্তভাবে আটকানো যায়।

এই মাস্কের মাধ্যমে মুখ, চিবুক এবং নাক ঢাকা সম্ভব হয়। এই মাস্কের উপরে একটি লোহার স্ট্রিপ থাকে যা সহজে নাক ও মুখ ঢেকে রাখে। বিশেষজ্ঞরা এও বলেছেন, মাস্ক খোলার সময় খেয়াল রাখা উচিত যাতে এতে কোনো ময়লা না লাগে এবং একবারে খোলা যায়।