জানুন মানুষ বাতের ব্যথায় জর্জরিত হয় কেন এবং বাতের ব্যথা কমানোর কিছু উপায়

22
জানুন মানুষ বাতের ব্যথায় জর্জরিত হয় কেন এবং বাতের ব্যথা কমানোর কিছু উপায়

বাতের ব্যথায় জর্জরিত হয়ে থাকতে দেখা যায় বহু মানুষকে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে বাতের ব্যথায় কাবু হয়ে যান অনেকে। কিন্তু একটি বয়সের পর কেন এই ব্যাথা শুরু হয়ে যায়? এই বাতের ব্যথা আসলে কি? আজ এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আপনাদের জানাব সেই সমস্ত কথা।

অস্থিসন্ধিতে কার্টিলেজের ক্ষয়ের ফলে বাতের ব্যাথা শুরু হয়ে যায়। সাদা রাবারের মতো এই কার্টিলেজের উপস্থিতি অস্থি সন্ধিতে দুটি হাড়ের মধ্যে ঘর্ষণ কমিয়ে দেয় এবং এই ক্ষয় হওয়ার পর শুরু হয়ে যায় হাড়ের ক্ষয়। হাড়ের ক্ষয় হওয়ার প্রথম ধাপ হলো বাতের ব্যথা। এই বাত প্রধানত দুটি প্রকারের হয়, অস্টিওআর্থারাইটিস রিউমাটয়েড আথ্রাইটিস।

প্রথম ধরনের বাত বেশি দেখা যায় আমাদের ভারতবর্ষে। শরীরচর্চা এবং পরিশ্রমের অভাব অথবা অনিয়ন্ত্রিত খাওয়া দেওয়ার ফলে বাতের ব্যথা বেশি দেখা যায়। পাশাপাশি ওজন বেশি হলে বাতের ব্যথায় কাবু হতে পারেন আপনি বেশি। কোনো ওষুধেই এই বাতের ব্যথা সম্পূর্ণ নির্মূল হয় না। ওষুধ ছাড়া এমন অনেক উপায় থাকে যা এই ব্যথা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করতে পারে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক বাতের ব্যথা কমানোর বেশ কিছু উপায়।

বাতের ব্যথা বেড়ে যাবার একটি প্রধান কারণ হলো শরীরে ভিটামিন ডি এবং ক্যালসিয়ামের ঘাটতি। নিয়মিত এই দুটি উপাদান যদি বেশি পরিমাণে খেতে পারেন তাহলে বাতের ব্যথা উপশম করা সম্ভব

অবশ্যই ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে যার জন্য নিয়ন্ত্রিত খাবার খেতে হবে আপনাকে। ওজন কম থাকলে হাড়ের ওপর চাপ বেশি পড়বে না ফলে বাতের ব্যাথার সম্ভাবনা থাকবে না।

নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে। নিয়মিত শরীরচর্চা করলে হারের জয়েন্ট সক্রিয় থাকবে তাই ব্যথা থাকবে নিয়ন্ত্রণে।

বাতের ব্যথা কমানোর জন্য অবশ্যই সাঁতার কাটতে পারেন আপনি। নিয়মিত সাঁতার কাটলে পেশিতে চাপ পড়ে এবং কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। হাঁটু এবং নিতম্বের জোর বেড়ে যায় সাঁতার কাটলে।