প্রথম ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করলে জানুন কি কি চার্জ দিতে হয়

6
প্রথম ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করলে জানুন কি কি চার্জ দিতে হয়

বর্তমান দুনিয়াতে ক্রেডিট কার্ডের প্রতি মানুষের আকর্ষণ বেড়েছে। তবে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে বেশ কিছু দিকে সতর্ক থাকা আবশ্যক। কারণ ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করলে নির্দিষ্ট সময় অন্তর অ্যাকাউন্ট থেকে চার্জ যায় কাটা। এক নজরে দেখে নিন ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারকারীদের যে 6 রকমের চার্জ দিতে হয়, সে গুলি কী কী।

বার্ষিক চার্জ : যোগদানের ফি এবং বার্ষিক ফি দিয়ে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে হয়। আপনাকে বিনামুল্যে একটি কার্ড দেওয়া হলে নিশ্চিতভাবেই তা বার্ষিক বিনামূল্যে থাকবে।

বিলম্বে পেমেন্ট বাবদ চার্জ : যদি কোন ব্যক্তি ন্যূনতম সময়ের মধ্যে বকেয়া অর্থ প্রদান না করে তখন বিলম্বে অর্থ প্রদানের জন্য ব্যাঙ্ক অতিরিক্ত চার্জ ধার্য করে।

সুদের চার্জ : বকেয়া পরিমাণের উপর এটা 35 থেকে 40 শতাংশ হারে বার্ষিক ফি চার্জ করে ব্যাংক। তাই সব সময় শেষ পেমেন্টের তারিখ মনে রাখতে হবে এবং সেই তারিখের আগেই পেমেন্ট করে দিতে হবে।

ক্যাশ হ্যান্ডেলিং চার্জ : যাদের ক্রেডিট কার্ড রয়েছে তারা এটিএম থেকে টাকা তুলতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে লেনদেনের জন্য অতিরিক্ত চার্জ দিতে হয়। ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা তুললে 2.5 শতাংশ থেকে 3 শতাংশ নগদ উত্তোলন চার্জ কাটা হয়।

জিএসটি : সমস্ত ক্রেডিট কার্ড জিএসটির আওতায় পড়ে।‌ বর্তমানে 18 শতাংশ হারে জিএসটি চাপানো রয়েছে ক্রেডিট কার্ডের উপর।

ওভারড্রাফট চার্জ : একজন ক্রেডিট কার্ড ধারক কার্ডে প্রযোজ্য মাসিক ক্রেডিট সীমা অতিক্রম করলে ওভারড্রাফট চার্জ ধার্য হয়।