আজ জানুন মিঠুন চক্রবর্তীর বলিউডে সুপারহিট অভিনেতা হয়ে ওঠার কাহিনী

20
আজ জানুন মিঠুন চক্রবর্তীর বলিউডে সুপারহিট অভিনেতা হয়ে ওঠার কাহিনী

বলিউড অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীকে আজ কে না চেনেন? অভিনয়ের পাশাপাশি তার নাচে মুগ্ধ আপামর ভারতবাসী। ডিস্কো ড্যান্সার এর ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ভারতের মাটিতে সীমাবদ্ধ নেই। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে তা পৌঁছে গিয়েছে রাশিয়াতেও। তবে এহেন অভিনেতার শুরুর দিনটা কিন্তু ততো মধুর ছিল না। বলিউডে তিনি যখন প্রথম পা রাখেন তখন তাকে সঙ্গে সঙ্গেই নায়কের ভূমিকায় কাস্ট করা হয়েছিল, এমনটা কিন্তু নয়।

দীর্ঘদিন যাবৎ বলিউডের ছোটখাটো রোলে অভিনয় করতে হয়েছে অভিনেতাকে। তার আগে বলিউডে তার পরিচয় ছিল স্পট বয়। বহুদিন শুটিং ফ্লোরে অমিতাভ এবং রেখার ব্যাগ বহন করেছেন তিনি। অমিতাভ যেখানেই যেতেন, স্পট বয় হিসেবে মিঠুন চক্রবর্তীকেও তার পিছন পিছন যেতে হতো। এই ভাবেই তিনি ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থেকেছেন। তবে নিজের স্বপ্নকে কখনো শেষ হতে দেননি তিনি। ১৯৭৬ সালে মৃণাল সেনের ফিল্ম ‘মৃগয়া’তে অভিনয়ের সুবাদে তিনি হলেন বলিউডের পরিচিত মুখ।

তবে তাতেও অবশ্য সেভাবে কাজের সুযোগ পাচ্ছিলেন না তিনি। যে কারণে তাকে আবার ছোটখাটো রোলে অভিনয় এবং তার সঙ্গে স্পট বয়ের কাজ চালিয়ে যেতে হচ্ছিল। তবে ১৯৮২ সালের ‘ডিস্কো ডান্সার’ ফিল্মের রূপ ধরে তার কাছে সুবর্ণ সুযোগ এলো। এই ছবিটি রাতারাতি মিঠুন চক্রবর্তীকে প্রচারের আলোয় এনে ফেললো। ডিস্কো ড্যান্সার মিঠুন চক্রবর্তীর স্টাইল স্টেটমেন্ট অনুকরণ করতে চাইলেন অনেকেই। এরপর আর তাকে অবশ্য ফিরে তাকাতে হয়নি।

১৯৯০ সালের ফিল্ম ‘অগ্নিপথ’-এ অমিতাভের সহ-অভিনেতা হিসেবে কাজ করার সুযোগ পান মিঠুন। রেখার সঙ্গেও স্ক্রিন শেয়ার করেন অভিনেতা। ক্রমশ বলিউডের রাশ এসে পড়লো তার হাতে। তিনি হয়ে উঠলেন তৎকালীন সময়ে বলিউডের সুপারহিট অভিনেতা। নিজের দীর্ঘ অভিনয় জীবনে শয়ে শয়ে ছবি তিনি বলিউডে উপহার দিয়েছেন।