যেকোন পুজোর সুফল গ্রহণ করতে জানুন এই নিয়ম গুলি

15
যেকোন পুজোর সুফল গ্রহণ করতে জানুন এই নিয়ম গুলি

বিশ্বাসে মিলায় বস্তু তর্কে বহুদূর। অনেক সময় আমরা নিজেদের জীবন থেকে বিপদকে সরিয়ে দেবার জন্য বাড়িতে বিভিন্ন পুজোর আয়োজন করে থাকি। যেমন, কাল রাখি পূর্ণিমার দিন অনেকেই বাড়িতে সত্যনারায়ণ পূজো করবেন। যেকোনো পুজো আমাদের মনের শান্তি ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে। কিন্তু অনেক সময় আমাদের অজান্তেই অনেক পুজো থেকে যায় অসমাপ্ত। তাই নিষ্ঠাভরে পুজো করলেও সেই পুজোর পূর্ণ ফল আমরা পেতে পারি না। তাই আজ এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আপনাদের জানাবো, ঠিক কোন কোন কাজগুলো করলে আপনার পুজো সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে এবং আপনি যেকোন পুজোর সুফল গ্রহণ করতে পারবেন।

অনেকেই আছেন, যারা পুজো করতে বসার সময় সঠিকভাবে বসেন না। ধর্মীয় গ্রন্থ গুলিতে পুজোপাঠ করার সময় বিশেষ একটি আসনের কথা বলা হয়েছে। পুজো করার সময় যদি আপনার বসার ভঙ্গি সঠিক না হয়, তাহলে এটি ইতিবাচক ফল না দিয়ে নেতিবাচক ফল দিয়ে দিতে পারে। তাই পুজো করার সময় উপযুক্ত ভঙ্গি সম্পর্কে যোগ্য পন্ডিতের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন।

পুজোর পর যদি কেউ রাগ করে অথবা ঘুমিয়ে পড়ে অথবা অপরের নিন্দা করে, তাহলে সেই পুজোর পূর্ণ ফল লাভ করা যায় না।বাড়িতে কোন রকম বাস্তু দোষ থাকলে আপনি যতই পুজো করুন না কেন, পূজোর ফল আপনি পেতে পারবেন না কিছুতেই। বাস্তু ত্রুটি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য অথবা মুক্ত করার জন্য যেকোনো বাস্তুশাস্ত্রে সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন অবিলম্বে।

পিতৃ দোষ থাকলেও উপাসনা করা সম্ভব হয় না। প্রথমে এই দোষ থেকে নিজেকে মুক্ত করুন এবং ঈশ্বরের আরাধনা করুন। কিভাবে নিজেকে মুক্ত করবেন তা নিয়ে আলোচনা করুন কোন ধর্মীয় পন্ডিতের সঙ্গে।

কিছু পুজো এবং জপ এমন জায়গায় করা উচিত, যেখানে সকলের নজর যায় না। একান্ত ভাবে এই সমস্ত পুজো করা উচিত।

অনেক সময় আমরা মন্ত্র উচ্চারণ করার সময় ভুলভাল মন্ত্র উচ্চারণ করে ফেলি, পূজোর ফল না পাওয়ার জন্য এটি অন্যতম কারণ হতে পারে।

অনেক সময় আমরা না বুঝে যে কোন রত্ন যে কোন আঙুলে পরে নেই, কিন্তু ভুলভাল আঙুলে ভুলভাল রত্ন পড়ার কারণে আমাদের জীবনে বিপরীত ফলাফল হতে পারে। তাই যোগ্য পন্ডিতের পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক রত্ন সঠিক আঙ্গুলে ধারণ করা উচিত।