নিজেকে সুন্দর এবং সতেজ রাখতে জানুন কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি

6
নিজেকে সুন্দর এবং সতেজ রাখতে জানুন কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি

প্রাচীনকালে মানুষের শরীরের যত্ন ও সু স্বাস্থের জন্য আয়ুর্বেদ কে বেছে নেওয়া হত। আয়ুর্বেদিক ভেষজ, খাদ্য, নিয়ম কার্যকারী হতে সময় নেয় ঠিক ই কিন্তু এর ফল সুদূরপ্রসারী। কিন্তু বর্তমান জীবনে মানুষের সব কিছুতেই ব্যস্ততা। সেইকারনে আমরা চট জলদি ফলের জন্য কৃত্রিম উপায় কে বেশি বেছে নেই। তবে আমাদের মনে রাখতে হবে আয়ুর্বেদ হল এমন এক জিনিস জা ম্যাজিক এর মত কাজ করে।

আজ এমন কিছু আয়ুর্বেদিক সামগ্রীর নাম বলব যা আপনারা বাড়িতে বসে ব্যাবহার করতে পারেন এবং নিজের রুপ ও শরীর সুন্দর করে তুলতে পারেন।

১। চন্দন- ত্বক পরিচর্যার জন্য চন্দন এর বিকল্প নেই। গরম কালে রোদে আমাদের ত্বকে সানবার্ন তৈরি হয়। সেক্ষেত্রে চন্দন এর সাথে গোলাপ জল মিশিয়ে মুখে ও পায়ে ব্যাবহার করতে পারেন। চন্দন ত্বকের গভীরে গিয়ে ত্বক কে পরিষ্কার করে ও ত্বকের উজ্জলতা বাড়াতে সাহায্য করে। মুখের দাগ ছোপ কমাতেও চন্দন বেশ উপকারী।

২।হলুদ- অ্যান্টিসেপ্টিক হিসেবে হলুদ এর বিকল্প নেই।হলুদ ত্বকের ব্রন ও দাগ সারাতে সাহায্য করে। তবে সাধারন হলুদ ও কস্তূরী হলুদ এর মধ্যে পার্থক্য আছে। সাধারন হলুদ ব্যাবহার করলে মুখ হলুদ হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থেকে যায় যা কস্তূরী হলুদে থাকে না।ব্রন কমানর জন্য পাতিলেবুর রস এর সাথে হলুদ বাটা মিশিয়ে ১০-১৫ মিনিট রেখে দিয়ে ব্রন তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়।

৩। ঘি- উচ্চমানের ঘি তে প্রচুর পরিমানে ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে যা হজমে সাহায্য করে, ত্বককে আদ্র রাখে ও স্বাস্থ্য রক্ষায় সাহায্য করে।

৪। জাফরান- জাফরানের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পটাশিয়াম যা ত্বকের ক্ষয়ক্ষতি সাড়াতে সাহায্য করে। ত্বক কে উজ্জ্বল রাখে এছাড়াও প্রতিদিন দুধের সাথে সামান্য জাফরান মিশিয়ে খেতে পারেন তাহলে ত্বকের গ্লো বৃদ্ধি পায়।

৫।লেবু- লেবুর রস প্রতিদিন খেলে শরীরের বাজে গন্ধ দূর হয়। লেবু ভিটামিন সি তে পরিপূর্ণ। এটি হজম শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে তেমনি ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর করে।

৬। ডাবের জল- ডাবের শাস প্রতিদিন একটা করে খেলে ওজন কমে। পেট পরিষ্কার থাকে, বয়সের দাগ ছোপ কমাতে সাহায্য করে। শরীরকে আদ্র রাখতে ডাবের জল বেশ উপকারি।