বাড়ির সমস্ত নেতিবাচক এবং অশুভ শক্তিকে দূর করতে জানুন ঘরোয়া টোটকা

10
বাড়ির সমস্ত নেতিবাচক এবং অশুভ শক্তিকে দূর করতে জানুন ঘরোয়া টোটকা

আমরা সকলেই চাই যে আমাদের জীবনে কখনো খারাপ সময় না আসুক। সব সময় আমাদের উপরে থাকুক ভগবানের আশীর্বাদ। আমাদের মন যা চায় তা যেন সহজে আমাদের হাতের কাছে চলে আসে। কিন্তু আমরা যা চাই তা কি সব সময় আমরা পাই? মানুষ ভাবে এক আর হয়ে যায় আর এক। তাই দূঃসময় কাটিয়ে ওঠার জন্য আমরা অনেকেই সাহায্য নিয়ে থাকি জ্যোতিষীদের। তবে সঠিক জ্যোতিষী পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার।

বেশিরভাগ জ্যোতিষী নিজের কার্যসিদ্ধি করার জন্য মানুষের মনে আরো বেশি করে ভয় ঢুকিয়ে দেয়। অনেকেই আপনাকে মূল্যবান রত্ন পড়ার জন্য বলবেন। আর আপনিও আপনার ভাগ্য ফেরানোর জন্য কোটি কোটি টাকার রত্ন পরবেন আপনার হাতে। কিন্তু আর যদি আপনাকে বলি, আপনার হাতের কাছে এমন একটি জিনিস রয়েছে, যার ফলে আপনি সহজে বিনামূল্যে আপনার ভাগ্য ফেরাতে পারবেন? নিশ্চয়ই শুনেছে করছে জানতে যে এমন কি জিনিস রয়েছে যার ফলে আপনার ভাগ্য ফিরে যাবে বিনামূল্যে? তাহলে আসুন আজকে জেনে নিই এই প্রতিবেদনে শুধুমাত্র একটি ফিটকিরি দিয়ে কিভাবে নিজের ভাগ্য ফেরানো যায়।

জীবনে যে কোনো বাধা-বিপত্তি এলে তা কাটিয়ে উঠতে পারে এই ফিটকিরি। আপনার বাড়ির সমস্ত নেতিবাচক এবং অশুভ শক্তিকে দূরে রাখতে পারে ফটকিরি। কিন্তু ফটকিরি ব্যবহার করার কিছু নিয়ম কানুন আছে। আসুন আজকে জেনে নিন কিভাবে আপনি ব্যবহার করবেন এই ফিটকিরি।

১) বাথরুমে একটি বাটিতে ফিটকিরি রেখে দিন। প্রতিমাসে নিয়ম করে বদলে ফেলুন সেটি। এরপরে আপনার বাড়ির সমস্ত নেতিবাচক শক্তি দূর হয়ে যাবে।

২)অতিরিক্ত পরিশ্রম করেও যদি মনের মতো ফল না পান তাহলে একটি কালো কাপড়ে একটুকরো ফিটকিরি বেঁধে বাড়ির সদর দরজার ঝুলিয়ে রাখুন। এই কাজ করলে আপনার বাড়ির সমস্ত অশুভ শক্তি দূর হয়ে যাবে।

৩) অনেক বাড়িতে বারবার অসুস্থ হয়ে যাবার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। এমন হলে অসুস্থ মানুষটির মাথা থেকে পা পর্যন্ত সাতবার ফটকিরি ঘষে দিন। এর পরেই ফটকিরি টি আগুনে পুড়িয়ে ফেলুন। সমস্ত নজর কেটে যাবে।

৪) ঘুমের মধ্যে অনেকেই ভয় পেয়ে উঠে পড়েন। এরকম যদি হয় তাহলে ঘুমানোর সময় বালিশের নিচে রেখে দিন এক টুকরো  ফিটকিরি। এটি করলে আপনার কাছে ঘেষতে পারবেনা কোন নেতিবাচক শক্তি।

৫) সাংসারিক অশান্তি যদি হয় তাহলে ঘরের প্রতিটি কোনায় একটু পরে ফিটকিরির গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন। এর ফলে বাড়ি থেকে নেতিবাচক শক্তি দূর হয়ে যাবে।