প্রায় ১৮ বিঘা জমির অবৈধ গাঁজা চাষ কেটে পুড়িয়ে দিল কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশ

3
প্রায় ১৮ বিঘা জমির অবৈধ গাঁজা চাষ কেটে পুড়িয়ে দিল কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশ

কোচবিহার- জেলার এলাকায় অভিযান অবৈধ গাঁজার চাষ নষ্ট করল পুলিশ। বৃহস্পতিবার কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশ কোচবিহারের ১ নং ব্লকের চান্দামারি গ্রাম এলাকায় প্রায় ১৮ বিঘা জমির অবৈধ গাঁজা চাষ নষ্ট করা হয়। যদিও ওই এলাকায় যারা গাঁজা চাষ করেছে তাদের কাউকে গ্রেপ্তার বা আটক করা হয় নি বলে জানা গিয়েছে।

কোচবিহার কোতোয়ালি থানার আইসি সৌম্যজিৎ রায় জানান, বৃহস্পতিবার সকালেই কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশের একটি বিশেষ দল চান্দামারি এলাকায় গিয়ে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে মোট ১৮ বিঘা জমির গাঁজার গাছ কাটা হয়। পরে তা এক জায়গায় জড় করে তা আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। যদিও পুলিশ দেখে ততক্ষণ গাঁজার চাষে যুক্ত থাকা সকলেই বাড়ি ছেড়ে গা-ঢাকা দেন। এধরনের অভিযান আমরা এর আগেও করেছি। আগামিতেও করব বলে জানান তিনি।

এদিন এবিষয়ে কোচবিহার জেলা পুলিশের আধিকারিক লাল্টু হলদার জানান, কোচবিহার জেলায় সাহেবগঞ্জ, দিনহাটা, কোচবিহারের চান্দামারি এলাকায় সহ বিভিন্ন জায়গায় এই সব অবৈধ গাঁজা চাষ করছে কিছু সংখ্যক মানুষ। আমাদের কাছে বিভিন্ন মাধ্যমে খবর রয়েছে। তাই আমরা জেলার বিভিন্ন এলাকায় নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে ঘুরে অভিযান চালিয়ে অবৈধ গাঁজার চাষ কেটে নষ্ট করা হচ্ছে। আর এবিষয় গুলি থেকে সবার আগে সাধারন মানুষকে সচেতন হতে হবে। পুলিশ আজ যেমন অভিযান চালাছে তেমনি আগামীতেও এই ধরনের অভিযান চালিয়ে যাবে।

নাম প্রকাশে ইচ্ছুক এলাকার এক বাসিন্দার অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে এই গ্রামে অনেক মানুষ গাঁজা গাছ চাষ করে নানা ভাবে ব্যবসা করে চলছে। এর জেরেই এলাকার নানান রকমের আনাগোনা দেখা যায়। তাতে এলাকার মানুষ আতঙ্কিত থাকে কিন্তু কাউকে বলার কিছু থাকে না। আজ যখন শুনলাম এলাকায় পুলিশ এসে গাঁজার গাছ কাটছে তখন তা শুনে খুব খুশি হলাম। তাই পুলিশকে ধন্যবাদ জানাই। এভাবে মাঝে মধ্যে এসে অভিযান চালাবে, তাহলে কেউ সাহস পাবে না গাঁজা চাষ করতে।