বাস্তুশাস্ত্রে তুলসী গাছের অনেক প্রতিকার এবং টোটকা আছে জেনে নিন

12
বাস্তুশাস্ত্রে তুলসী গাছের অনেক প্রতিকার এবং টোটকা আছে জেনে নিন

হিন্দু ধর্মে তুলসী গাছকে শুধু একটি সামান্য গাছ নয় দেবতা জ্ঞান করে পূজা করা হয়। অত্যন্ত প্রবিত্র মানা হয় এই গাছকে। কথিত আছে তুলসী গাছ কে দেবী লক্ষ্মীর রূপ ভাবা হয়ে থাকে। তাই তুলসীকে প্রসন্ন করলে বিষ্ণ ও লক্ষী প্রসন্ন হন। ঘরে সুখ ও সমৃদ্ধি বেড়ে ওঠে।

জ্যোতিষশাস্ত্র এবং বাস্তুশাস্ত্রে, তুলসী গাছের অনেক প্রতিকার এবং টোটকা দেওয়া হয়েছে। এই তুলসী প্রতিকারগুলি খুব কার্যকর ফল দেয়। চলুন দেখে নেয়া যাক।

শাস্ত্রে বলা হয়েছে যে, তুলসী গাছের কাছে বসে ওঁম নমো ভগবতে বাসুদেবায় নমঃ মন্ত্র অন্তত ১০৮ বার জপ করুন। তারপর আপনার ইচ্ছা পূরণের জন্য প্রার্থনা করুন। এছাড়াও প্রতি একাদশীতে তুলসীর পূজা করা ভালো।
তাই একাদশীতে বা রবিবার মাটি কিংবা আটা দিয়ে প্রদীপ তৈরি করুন। ভুল করেও আটা তে নুন মেশাবেন না। ওই প্রোফাইল একটু ঘী দিয়ে জ্বালিয়ে নিন। তার মধ্যে একটুখানি হলুদ দিন। আর এসব তুলসী গাছের মূলে রাখুন। এবং সেই প্রদীপ অবশ্যই উত্তরদিকে মুখ করে রাখুন তবে কোনো ভাবেই তুলসীকে ছোঁবেন না। একাদশীতে তুলসীকে ছুঁতে নেই। পারলে তুলসীর গোড়ায় একটু গুর দিন। বাড়িতে না এই গাছ থাকলে মন্দিরে গিয়েও এই প্রতিকার করতে পারেন। আর পরের দিন অবশ্যই সেই প্রদীপ কোনো গরুকে খাওয়ান। প্রদীপটা কখনোই ওখানে ফেলে রাখবেন না। এভাবে নিষ্ঠা ভরে নিয়ম গুলো মানলে মা লক্ষ্মী ও বিষ্ণু প্রসন্ন হন। কারণ গুর বিষ্ণুর পছন্দের খাবার। হলুদ বৃহস্পতি গ্রহের প্রতিনিধিত্ব করে। এই উপায়গুলি করলে ভগবান বিষ্ণু এবং মা লক্ষ্মী প্রসন্ন হন এবং সৌভাগ্য দান করেন।