দীপাবলির আগে জানুন ‘ঝাড়ু প্রতিকার’ সম্পর্কে

14
দীপাবলির আগে জানুন ‘ঝাড়ু প্রতিকার’ সম্পর্কে

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপূজা সবে মাত্রই শেষ হয়েছে। সামনে আলোর উৎসব। বাঙালির অন্যতম প্রধান উৎসব দীপাবলি। মা কালীর উপাসনা হয় পাঁচদিন ধরে যেটা ভাইফোঁটা তে শেষ হয়। এই কদিন বাঙালিরা হৈ হৈ করেন। শুধু মা কালির নয় এই সময় গৃহ লক্ষ্মীর পূজাও করা হয়। সাথে গণপতি জির পূজাও করা হয়ে থাকে।

তবে কিছু প্রচলিত বিশ্বাস আছে যে, কোনও ব্যক্তি দীপাবলির দিন দেবী লক্ষ্মী ও গণেশের আরাধনা করলে তাঁর জীবনে সুখ, সমৃদ্ধি ও ধন-সম্পদের কোনও অভাব থাকে না। জ্যোতিষশাস্ত্রে দীপাবলিতে দেবী লক্ষ্মী এবং বিঘ্নহর্তার পূজা ছাড়াও আরও কিছু প্রতিকারের কথা হয়েছে। প্রতিকারগুলির মধ্যে অন্যতম হল ‘ঝাড়ু প্রতিকার’। কি এই ঝাড়ু প্রতিকার আসুন জেনে নিই।
জ্যোতিষশাস্ত্রে বলা হয়ে থাকে যে, প্রতিটি গৃহস্থ বাড়ির জন্যই ঝাড়ু একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ঝাড়ু কে তুচ্ছ জ্ঞান করা কখনোই উচিত নয়।

তাই এই পবিত্র দীপাবলিতে, বাড়ি থেকে আপনার পুরানো ঝাড়ু বের করুন এবং একটি নতুন ঝাড়ু কিনুন। জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুসারে এই দিনে ঝাড়ু দান করাও খুব শুভ বলে মনে করা হয়। আপনি যদি আর্থিক সমস্যায় থাকেন তাহলে তিনটি ঝাড়ু কিনুন এই দিন। কিনে কোনো মন্দিরে গিয়ে দান করে আসুন আপনার আর্থিক সমস্যা অনেক টাই কেটে যাবে বলে মনে করা হয়।
ঝাড়ু দিয়ে ঘর পরিষ্কার করা হয় তাই লক্ষ্মী দেবী খুবই খুশি হন এদিন নতুন ঝাড়ু কিনলে।
তবে কিছু নিয়ম আছে যা একেবারেই করা উচিত না সেগুলো হলো:

১. বাড়ির ঝারুকে কখনো বাড়ির সামনে ফেলে রাখবেন না। সব সময় দরজার পিছনে লুকিয়ে রাখতে হয়।

২. ঝাড়ু কে দাড় করিয়ে রাখা ঠিক নয়। সব সময় মাটিতে শুইয়ে রাখা উচিত।

৩. ঝাড়ু দেওয়া হয়ে গেলে ছুঁড়ে ফেলতে নেই। এতে লক্ষ্মী দেবী রুষ্ট হন।
এই সব নিয়ম মেনে চললে সংসারে মা লক্ষ্মী বিরাজমান হন। সুখ ও শান্তিও বজায় থেকে।