দীর্ঘ ১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের অভিজ্ঞতা জানালেন কিরন রাও

10
দীর্ঘ ১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের অভিজ্ঞতা জানালেন কিরন রাও

বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্ট নামেই পরিচিত Aamir Khan। সারাবছরই খুব বেশি ছবি যদিও করেন না অভিনেতা। তবে যে ছবিই করুন না কেন সেটা দর্শকদের মনে দাগ কাটার মত ছবি হবেই হবে। সিনেমায় অভিনয়ের কারণে বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে অভিনেতার। তবে বিগত কিছুদিন যাবৎ অন্য কারণে বেশ চর্চায় রয়েছেন তিনি।

সিনেমার থেকে একেবারেই আলাদা তার ব্যক্তিগত জীবন। আর ব্যক্তিগত জীবনে দ্বিতীয় বিয়ে করলেও সেই বিয়েতে এক দশকেরও বেশি সময়ের পর বিচ্ছেদ ঘটেছে। বিবাহ-বিচ্ছেদের ঘোষণা করলেন অভিনেতা আমির খান এবং পরিচালক কিরণ রাও। অবসান হল তাঁদের দীর্ঘ ১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের। যৌথ বিবৃতিতে আমির এবং কিরণ লিখেছেন – “বিগত ১৫ বছরে আমরা জীবনের আনন্দে বহু অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিয়েছি। বিশ্বাস, শ্রদ্ধা আর ভালবাসাই ছিল আমাদের সম্পর্কের বুনিয়াদ। এবার আমরা জীবনের এক নতুন অধ্যায় শুরু করতে চলেছি, তবে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে নয়। আমরা দায়িত্ববান অভিভাবক হিসেবে আমাদের দায়িত্ব পালন করব। আজাদের প্রতি আমরা সমানভাবে দায়িত্ব পালন করব।” প্রথম স্ত্রী রীনা দত্তের পর Kiran Rao কে বিয়ে করেছিলেন আমির খান। বিয়ের পর কেটে গিয়েছিল ১৫টা বছর। এতটা দীর্ঘ সময় পরে আবারো সম্পর্ক ইতির ঘটনার পুনরাবৃত্তি। এই কারণেই ফের চর্চায় উঠে এসেছেন আমির খান।

অবশ্য বিচ্ছেদের কারণ নিজেদের মধ্যে কোনো ঝগড়া বিবাদ নয়! বরং তাদের দুজনের মধ্যে এখনও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। তবে একসাথে স্বামী-স্ত্রী না হয়ে থাকারই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আমির-কিরণ যৌথভাবে। নিজেদের এই অদ্ভুত সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন সকলকে।

প্রসঙ্গত, ডিভোর্সের ঘোষণার কয়েকমাস আগেই সোশ্যাল মিডিয়াকে বিদায় জানিয়েছেন অভিনেতা। তিনি নিজে সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্টগুলি না চালালেও তার টিমের তরফ থেকেই যোগাযোগ রাখা হবে দর্শকদের সাথে এমনটাই জানিয়েছিলেন তিনি। এর মাসখানেক পরেই ডিভোর্সের খবর প্রকাশ্যে আসে। তাঁদের মতে, যৌথভাবে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত কিছুদিন আগে নিয়ে থাকলেও এবার আনুষ্ঠানিক ভাবে আমাদের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করলাম। তবে ডিভোর্সের খবরের পরেও আরো একটি ভিডিওটি আমির খান ও কিরণ রাও হাসি মুখেই জানিয়েছেন যে বিবাহ বিচ্ছেদ মানেই সম্পর্ক শেষ নয়! তারা একই সাথে সিনেমা সহ অন্যান্য প্রজেক্টেও কাজ করবেন। তাঁদের পাশে থাকার জন্য আত্মীয় ও বন্ধুদেরকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তাঁদের কথায়, এই বিবাহবিচ্ছেদ সম্পর্কের সমাপ্তি নয়, বরং এক নতুন সফরের শুরু।