ভাড়া কমানোর পাশাপাশি সাধারণের জন্য আকর্ষণীয় ট্যুর প্যাকেজ নিয়ে হাজির কর্নাটকের “সোনার রথ”

6
ভাড়া কমানোর পাশাপাশি সাধারণের জন্য আকর্ষণীয় ট্যুর প্যাকেজ নিয়ে হাজির কর্নাটকের

দক্ষিণ ভারতের একমাত্র বিলাসবহুল ট্রেন হলো কর্নাটকের “সোনার রথ”। ২০০৮ সাল থেকে যাত্রা শুরু করেছে এই ট্রেন। বিলাসবহুল, আভিজাত্যময় ট্রেনটি রীতিমতো পাঁচতারা ট্রেনের তকমা পেয়ে গিয়েছে। ট্রেনের ভেতরে সাজসজ্জা যেন পাঁচতারা হোটেলের চেয়ে কিছু কম নয়। এমন বিলাসবহুল ট্রেন যাত্রীদের উদ্দেশ্যে আরো আকর্ষণীয়ভাবে সেজে উঠেছে। কর্ণাটক সরকারের উদ্যোগে আগামী বছর থেকেই “সোনার রথ” এক নতুন রূপে যাত্রীদের সামনে আসতে চলেছে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালেই কর্ণাটক সরকারের তরফ থেকে “সোনার রথ” ট্রেনটিকে আইআরসিটিসির হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এমন বিলাসবহুল ট্রেনে সফর করতে গেলে মাথাপিছু খরচ পড়ে প্রায় এক লক্ষ টাকারও বেশি। মূলত বিদেশি পর্যটকেরাই এমন বিলাসবহুল ট্রেনে সফর করতে পারতেন। সোনার রথে সফর করা ভারতের সাধারণ যাত্রীদের পক্ষে ব্যয়বহুল ব্যাপার। তবে, ২০১৮ সাল থেকে অবশ্য “সোনার রথ” এর ভাড়া কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ।

করোনাকালে দীর্ঘদিন যাবৎ “সোনার রথ” ট্রেনটির সফর বন্ধ ছিল। পাশাপাশি, মহামারীর জন্য বিদেশীরাও তেমনভাবে এ দেশে আসছেন না। অতএব দেশের সাধারণ মানুষেরা যাতে সোনার রথে সফর করতে পারেন তার জন্য নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে আইআরসিটিসি। কর্তৃপক্ষ সূত্রে খবর, ভারতের সাধারণ মানুষেরা যাতে এই বিলাসবহুল ট্রেনে সফল করতে পারেন তার জন্য ভাড়া কমানোর পাশাপাশি বেশকিছু আকর্ষণীয় পরিষেবা প্রদান করছেন তারা।

সাধারণের জন্য রয়েছে আকর্ষণীয় ট্যুর প্যাকেজ। ট্রেনটিকে নতুন করে সাজানো হয়েছে। ট্রেনে বাসনপত্র যা রয়েছে সবই আন্তর্জাতিক মানের। ট্রেনের মধ্যে রয়েছে ওয়াইফাই। রয়েছে নেটফ্লিক্স-অ্যামাজন-হটস্টারের লিংক সহ স্মার্ট টিভি। যাত্রী সুবিধার্থে সবরকম ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সুরক্ষার জন্য রয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা। পাশাপাশি, থাকছে অভিজ্ঞ শেফের হাতে তৈরি দেশীয় খাবার থেকে শুরু করে কন্টিনেন্টাল ডিশ।