ফের একবার রাজ্যকে বিঁধলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

19
ফের একবার রাজ্যকে বিঁধলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

টাকা না দিলে এই রাজ্যে চাকরি মেলে না, এই কথাটা বিগত কয়েক বছর ধরে চরম বাস্তব হয়ে দাঁড়িয়েছে। যার একের পর এক প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে ইদানিং। শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগের মাঝে এবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ফের একবার রাজ্যকে বিঁধলেন। এক ব্যক্তিকে শিক্ষক পদে থেকে বরখাস্ত করার প্রেক্ষিতে তিনি এই মন্তব্য করেন।

মঙ্গলবার মামলার শুনানির শেষে তিনি এই মন্তব্য করার পাশাপাশি ছয় মাসের মাথায় ওই ব্যক্তিকে পুনরায় চাকরিতে বহাল করার নির্দেশ দেন। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে মুর্শিদাবাদের একটি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষকতার চাকরি পেয়েছিলেন মিরাজ শেখ নামের এক ব্যক্তি। কিন্তু চার মাস চাকরি করার পর তাকে বরখাস্ত করে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ।

সংসদের যুক্তির স্নাতক স্তরে ওই শিক্ষকের নম্বর কম ছিল, সার্ভিস বুক তৈরির সময় বিষয়টি তাদের নজরে পড়ে। এই কারণেই তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এরপর আদালতের দ্বারস্থ হন ওই শিক্ষক। আদালতের কাছে তিনি আবেদন করে জানান যে ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচার এডুকেশনের নিয়ম অনুসারে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে সংরক্ষিত পদে চাকরি পেতে হলে স্নাতক স্তরে ৪৫% নম্বর থাকতে হবে।

সেখানে মিরাজের প্রাপ্ত নম্বর ৪৬ শতাংশ। তাই এই পদে চাকরি পাওয়ার যোগ্যতা তার রয়েছে। এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি মামলার শুনানির দিন বলেন পশ্চিমবঙ্গ এমন একটি রাজ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে যেখানে টাকা না দিলে চাকরি পাওয়া যাবে না। হয়তো ওই ব্যক্তি মানিক ভট্টাচার্যকে টাকা দেননি, তাই তার চাকরি বাতিল হয়েছে!