প্রজাতন্ত্র দিবসে নজর কাড়তে চলেছে জম্মু কাশ্মীর!

6
প্রজাতন্ত্র দিবসে নজর কাড়তে চলেছে জম্মু কাশ্মীর!

বছরের বেশ কিছু তারিখ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ আমাদের সকলের জীবনে। তেমনই একটি তারিখ হল ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবস। নেতাজি জন্মজয়ন্তীর পরপরই এই দিনটিকে ঘিরে আমাদের সকলের দেশাত্মবোধ উদ্দীপ্ত হয়ে ওঠে। প্রত্যেক ভারতীয়দের মনেই তাই এই দিনটির অসীম তাৎপর্য।

এমনকি দেশের নানা প্রান্তে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান আর কুচকাওয়াজের মাধ্যমে পালিত হয় দিনটি। দেশের মিশ্র সংস্কৃতি ও তার বিশাল ঐতিহ্যের ছবি ফুটে ওঠে প্রতি রাজ্যে, জেলায়, শহরে, গ্ৰামে। শুধু রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রেই দিনটি পালন করা হয় তা নয়। কলকিতা, মুম্বাই, চেন্নাই সহ দেশের সব শহর ও গ্ৰামের মানুষরা এই দিনটিতে এক জায়গায় মিলিত হন। তেরঙা পতাকার নিচে জড়ো হয়ে দেশের গণতন্ত্রকে শ্রদ্ধা জানান। এবার প্রজাতন্ত্র দিবসে ভিন্ন ভিন্ন থিম নিয়ে দেখা যাবে অনন্য ‘ট্যাবলো’। শতাধিক শিল্পীকে দেখা যাবে এসব ট্যাবলোতে প্রদর্শন করতে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই বিশেষ শিল্পীদের সঙ্গে দেখা করবেন বলে খবর। এর পাশাপাশি, এনসিসি ক্যাডেট, এনএসএস স্বেচ্ছাসেবক, বিদেশী ক্যাডেট/প্রতিনিধি এবং উপজাতি অতিথিরাও প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে পৌঁছাবেন।

২৫ জানুয়ারি এই সব শিল্পী, ক্যাডেট, অতিথি ও প্রতিনিধিরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছবি তোলার সুযোগ পাবেন। কতর্ব্য পথে প্রজাতন্ত্র দিবসের শোভাযাত্রায় ‘দুর্গা পূজা’ ছাড়াও নতুন ‘জম্মু ও কাশ্মীর’ হবে দর্শকদের বিশেষ আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। কেন্দ্রীয় সরকারের পাঁচটি মন্ত্রক/বিভাগ, যেগুলি কর্তব্য পথে নামছে, তার মধ্যে রয়েছে ভারতীয় কৃষি গবেষণা পরিষদের থিম ‘মিলেট’, কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনীর মূকনাট্য ‘নারী শক্তি’, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো, সংস্কৃতি মন্ত্রক এবং উপজাতি মন্ত্রকের ট্যাবলো। মূক শিল্পী, এনসিসি ক্যাডেট, এনএসএস স্বেচ্ছাসেবক, বিদেশী ক্যাডেট/প্রতিনিধি এবং উপজাতীয় অতিথি, এরা সবাই মিলে প্রায় সাত শতাধিক শিল্পীরা থাকবেন। বুধবার, এই সমস্ত শিল্পী, ক্যাডেট এবং অন্যান্য অতিথিরা প্রধানমন্ত্রী মোদীর বাসভবনে পৌঁছাবেন।

সংস্কৃতি মন্ত্রকের মূকনাট্য হবে সবচেয়ে বড়। এতে প্রায় ৮০ জন শিল্পী অংশ নেবেন। এবার ১৭টি রাজ্যকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে অরুণাচল প্রদেশের মূক থিম হবে ‘প্রভালা তীর্থম’। অসমের মূকনাট্য, ‘বীরদের দেশ এবং আধ্যাত্মবাদ’, লাদাখের পর্যটনের থিম, উত্তরাখণ্ডের থিম ‘মানসখণ্ড’, ত্রিপুরায় পর্যটন ও জৈব চাষ, গুজরাট ‘গ্রিন এনার্জি’, ঝাড়খণ্ড ‘বাবা বৈদ্যনাথ ধাম’, অরুণাচল প্রদেশের ‘প্রসপেক্ট অফ টু’। ‘, জম্মু ও কাশ্মীরের থিম ‘নতুন জম্মু ও কাশ্মীর’, কেরালার থিম ‘নারী শক্তি: কেরালা’।

পশ্চিমবঙ্গের থিম ‘কলকাতায় দুর্গা পূজা’, মহারাষ্ট্র ‘সাদে তিন শক্তিপীঠ ও নারী শক্তি’,। তামিলনাড়ুর থিম নারীর ক্ষমতায়ন ও সংস্কৃতি, কর্ণাটকে মহিলাদের উদযাপন, হরিয়ানার ‘আন্তর্জাতিক গীতা মহোৎসব’,। দাদরা ও নগর হাভেলি এবং দমন ও দিউ-এর থিম ‘উপজাতীয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সুরক্ষা’ এবং উত্তরপ্রদেশের থিম ‘অযোধ্যা দীপোৎসব।