ডায়েট কন্ট্রোল করতে হলে রক্তের গ্রুপ জানা বাধ্যতামূলক!

10
ডায়েট কন্ট্রোল করতে হলে রক্তের গ্রুপ জানা বাধ্যতামূলক!

আমরা আজকাল খুব খাওয়া নিয়ে সতর্ক থাকতে ভালোবাসি। সবাই আমরা কোনো না কোনো ভাবে ডায়েট করেই থাকি। কিন্তু ডায়েট করেও যে লাভের লাভ কিছুই হচ্ছে না, সেটার উপায় কি? এই প্রশ্ন এখন সবার মুখে মুখেই ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমরা নিয়ম করে তেল মশলা কম খাচ্ছি কিন্তু কিছুই হচ্ছে না। তাহলে সমস্যা কোথায় হচ্ছে?

আমরা অনেকেই জানি না আমাদের ব্লাড গ্রুপ কি? সেই ব্লাড গ্রুপের জন্যও যে আমাদের শরীরে প্রবলেম দেখা দিতে পারে সেটা কিন্তু আমরা খবরই রাখি না। তাই ব্লাড গ্রুপ মেনে ডায়েট করাটা আমাদের উচিত। কারণ খাবারের সাথে রক্তের গ্রুপের রাসায়নিক প্রতিক্রিয়া হতেই থাকে। তাই ঠিক মতো ডায়েট কন্ট্রোল করতে হলে রক্তের গ্রুপ জানা বাধ্যতামূলক।

গ্রুপ মেনে খাবার খেলে সহজেই সেটা সহজ পাচ্য হয় ও এনার্জি বৃদ্ধি পায় ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠে। মাছ মাংস ডিম সুষম খাবার আমাদের ডায়েটে থাকে কিন্তু সবাই সব কিছু হজম করতে পারে না। বিশেষ করে চিকেন এই ব্লাড গ্রুপের মানুষের জন্য বিষ। আসলে O গ্রুপের মানুষের জন্য এই চিকেন এক প্রকার বিষ। এই গ্রুপের মানুষের পেটের সমস্যা বেশী হয়। এদের জন্য হালকা খাবার চর্বিহীন মাছ, মাংস বেশী শাক সবজি খাওয়াটাই ভালো। মাংস অবশ্য এদের এড়িয়ে চলাই ভালো।

এদিকে আবার A ব্লাড গ্রুপের মানুষদের বলা হচ্ছে তারা শস্য দানা মাংস, বেশী করে খেতে। কারণ এদের মধ্যে সংক্রনম জনিত সমস্যা থাকে। যে কারণেই এদের মাংস খাওয়া খুবই দরকারি। এদের দেহে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতেই এই সব খাবার খেতে বলা হয়। B গ্রুপের মানুষদের আবার চিকেন ডিম, সবুজ শাক সবজি খেতে বলা হয়। এদের তুলনামূলক সুগার ও হার্টের সমস্যা বেশী থাকার কারণে মুসুরের ডাল, ভুট্টা, গম, বাদাম কম খেতে বলা হয়।।