সত্যি কি দুঃসময় ঘনিয়ে আসতে চলেছে পৃথিবীজুড়ে?

9
সত্যি কি দুঃসময় ঘনিয়ে আসতে চলেছে পৃথিবীজুড়ে?

তাহলে কি দুঃসময়ে ঘনিয়ে আসতে চলেছে পৃথিবীজুড়ে? তাহলে কি ধ্বংসের মুখে এমনই ভবিষ্যৎবাণী করছেন বাবা ভাঙ্গা আসুন জানব তার ভবিষ্যৎ বাণী সম্পর্কে। কিন্তু প্রথমে প্রশ্ন জাগতে পারে বাবা ভাঙ্গা কে? বুলগেরিয়ার জন্মগ্রহণকারী এই ব্যক্তি নাম বাবা ভাঙ্গা, যিনি ১১১ বছর আগেই তিনি মারা গেছেন কিন্তু তাঁর করা ভবিষ্যৎ বাণী গুলি একের পর এক সত্যি প্রমাণিত হচ্ছে।

তিনি বলে গেছেন পৃথিবী ধ্বংস হতে চলেছে ৫০৭৯ সালে। তাঁর ভবিষ্যৎবাণীগুলির মধ্যে অন্যতম হলো ২০২২ সালে পঙ্গপালের আক্রমণ। এমনকি দেশকে দুর্ভিক্ষের মধ্য দিয়েও যেতে হতে পারে। তবে ২০২৩ সালে পৃথিবী নাকি তার কক্ষপথ পরিবর্তন করে ফেলতে পারে, এছাড়াও ২০১৮ সালে শুক্র গ্রহে পৌঁছে যেতে পারবেন মহাকাশচারীরা এমনই দাবি করেছেন বাবা ভাঙ্গা।

আরও আশ্চর্যের ভবিষ্যৎবাণী হলো ২০৪৬ সাল থেকে মানুষ নাকি ১০০ বছর পর্যন্ত বাঁচতে শুরু করবে। চিকিৎসা বিজ্ঞানেও ঘটবে উন্নতি, বিভিন্ন ব্যক্তির অঙ্গ প্রতিস্থাপনেও অগ্রগতি ঘটবে, যার ফলেই মানুষ দীর্ঘ আয়ু পেতে পারবে। এমনকি একটা সময় আসতে চলেছে যখন পৃথিবীতে রাত হবে না ২১০০ সালে কৃত্রিম সূর্যালোকের দ্বারা পৃথিবী নাকি আলোকিত হয়ে উঠবে। যদিও এই সমস্ত কিছু কাল্পনিক মনে হলেও তার ভবিষ্যৎবাণীর ৮৫ শতাংশই বর্তমানে মিলে গিয়েছে।

তাঁর ভবিষ্যৎবাণী মধ্যে দুটি ভবিষ্যৎবাণী এখনও পর্যন্ত সত্যি হয়ে গিয়েছে। প্রথমটি হল ইউরোপে খরার সমস্যা বর্তমানে পর্তুগাল ও ইতালিতে জলের অভাব দেখা দিয়েছে। এছাড়াও অস্ট্রেলিয়া ও এশিয়ায় বন্যার প্রাদুর্ভাবের পূর্বাভাস দিয়েছিলেন বাবা ভাঙ্গা। এ বছর অস্ট্রেলিয়ায় ভয়াবহ বন্যা হয়ে গিয়েছে। এমনকি উত্তর-পূর্ব ভারতে ও বাংলাদেশে বন্যা হয়েছে পাকিস্তান বর্তমানে বন্যার সঙ্গে লড়াই করছে অর্থাৎ বোঝাই যাচ্ছে তাঁর ভবিষ্যৎ বাণীগুলি একদম তাচ্ছিল্য করার মতো নয় সময়ের সাথে সাথে সবকিছুই হয়তো মিলে যাবে। অর্থাৎ ভয়ঙ্কর সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে চলেছি আমরা তার জন্য নিজেদের প্রস্তুত রাখতে হবে সর্বদা।