শব্দের থেকেও প্রায় ছয় গুণ দ্রুত গতি সম্পন্ন হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণ করল ভারতের DRDO

7
শব্দের থেকেও প্রায় ছয় গুণ দ্রুত গতি সম্পন্ন হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণ করল ভারতের DRDO

আমেরিকা, রাশিয়া এবং চীনের পর এবার শব্দের থেকেও প্রায় ছয় গুণ দ্রুত গতি সম্পন্ন ভারতীয় হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণ করল ভারতের ডিফেন্স রিসার্চ অফ ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন। সোমবার সকালে উড়িষ্যার বালাসোরে এই হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রটির সফল উৎক্ষেপণ করেছে ডিআরডিও। আমেরিকা, রাশিয়া এবং চীনের পর বিশ্বের চতুর্থ রাষ্ট্র হিসেবে হাইপারসনিক মিসাইলের মালিক হলো ভারত।

বিশিষ্ট সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, সোমবার বেলা ১১ টা নাগাদ বালাসোরের এপিজে আব্দুল কালাম টেস্টিং রেঞ্জ থেকে “Hypersonic Test Demonstrator Vehicle” তথা HSTDV ক্ষেপণাস্ত্রটি সফল উৎক্ষেপণ করে ডিআরডিও। উৎক্ষেপণের জন্য অগ্নি মিসাইল বুস্টার ব্যবহার করা হয়, যা ক্ষেপণাস্ত্রটিকে ভূপৃষ্ঠ থেকে ৩০ কিলোমিটার উচ্চতায় পৌঁছে দেয়।

এরপর, সফলভাবেই অগ্নি মিসাইল বুস্টার থেকে আলাদা হয়ে যায় হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রটি। এরপর সফলভাবেই ক্ষেপণাস্ত্রের স্ক্র্যামজেট ইঞ্জিন চালু করেন ডিআরডিওর আধিকারিকরা। উল্লেখ্য, ডিআরডিওর প্রধান সতীশ রেড্ডি ও তাঁর টিমের নেতৃত্বে সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে ক্ষেপণাস্ত্রটি তৈরি করা হয়েছে। ডিআরডিও সূত্রে খবর, এদিনের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণে সফল হয়েছে HSTDV।

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ক্ষেপণাস্ত্রটিকে ভারতীয় সেনা বাহিনীর অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগোচ্ছে ডিআরডিও। সংস্থা সূত্রে খবর, প্রতি সেকেন্ডে প্রায় দুই কিলোমিটার পথ অতিক্রম করার ক্ষমতা রাখে HSTDV। ভূমি, আকাশ, যুদ্ধজাহাজ; তিনটি ক্ষেত্র থেকেই শত্রুপক্ষকে লক্ষ্য করে এই ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়া যাবে। পরমাণু বোমা থেকে শুরু করে, রাসায়নিক এবং জৈবিক বোমা বহন করতে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রটি। পাশাপাশি, এই বিমানের অবস্থান ট্রেস করতে পারবেনা শত্রুপক্ষ।