সুখোই ৩০ যুদ্ধবিমান থেকে ব্রহ্মস সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করল ভারতীয় সেনাবাহিনী

8
সুখোই ৩০ যুদ্ধবিমান থেকে ব্রহ্মস সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করল ভারতীয় সেনাবাহিনী

আবারো সাগরের বুকে শক্তিশালী মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ সক্ষম হলো ভারতীয় সেনাবাহিনী। শুক্রবার বঙ্গোপসাগরে “ব্রহ্মস” সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করে বিশ্বের কাছে নিজেদের সামরিক শক্তির পরিচয় রাখলো ভারত। এক সেনা আধিকারিক জানালেন, ভারতীয় বায়ুসেনা বিভাগের “সুখোই ৩০” যুদ্ধবিমান থেকে উৎক্ষেপিত হয়েছে ভারতের শক্তিশালী “ব্রহ্মস” মিসাইল।

ভারতীয় নৌ সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, সেনাবাহিনীর একটি পরিত্যক্ত জাহাজ লক্ষ করে এদিন পরীক্ষামূলকভাবে মিসাইল উৎক্ষেপণ করা হয়। মিসাইল আঘাতে জাহাজটি সম্পূর্ণভাবে ছিন্নভিন্ন হয়ে সমুদ্রে ডুবে যায়। এই মিসাইল উৎক্ষেপণের জন্য এদিন পাঞ্জাবের থাঞ্জাভুর টাইগারশার্ক বিমান ঘাঁটি থেকে উড়ান শুরু করে ভারতীয় নৌ সেনা বিভাগের যুদ্ধবিমান। মিসাইল উৎক্ষেপণের আগে মাঝ আকাশে একবার বিমানে জ্বালানি ভরতে হয়েছিল।

এদিন ভারত-চীন পূর্ব লাদাখ সীমান্তের মাঝামাঝি এলাকায় এই মিসাইলের পরীক্ষামূলক সফল উৎক্ষেপণ করা হয়। ভারতীয় নৌসেনাবাহিনী সূত্রে খবর, এদিন মিসাইল উৎক্ষেপণের আগে প্রায় তিন ঘন্টা সাগরের উপর টহল দিয়ে বেরিয়েছে যুদ্ধবিমান সুখোই এম কে ৩০। ভারত-চীন সীমান্তে এহেন শক্তি প্রদর্শন যে কার্যত লাদাখ সংঘাত পরিস্থিতিতে চীনের প্রতি একপ্রকার সতর্কবার্তা, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

উল্লেখ্য, গত বছরের মে মাসে ভারতীয় বায়ুসেনা বিভাগের তরফ থেকে সুখোই ৩০ এমকে যুদ্ধবিমান থেকে “ব্রহ্মস” মিসাইলের প্রথম সফল উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল। এই মিসাইলটি অতি দীর্ঘ দূরত্ব থেকেও নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম। সমুদ্র হোক বা ভূমি, আকাশ থেকে উৎক্ষেপিত শক্তিশালী সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল “ব্রহ্মস” শত্রুপক্ষের জাহাজ নিমেষের মধ্যে ধ্বংস করতে সক্ষম।