দেশে লকডাউন পালন এবং করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে সফল ভারত

7
দেশে লকডাউন পালন এবং করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে সফল ভারত

ভারতে কঠোরভাবে লকডাউন পালনের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির ভূমিকা সর্বাপেক্ষা বেশি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী লকডাউনের সময় বারবার প্রকাশ্যে এসে জনসাধারণকে ঘরে থাকার এবং সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলার আবেদন জানিয়েছেন। সে কারণেই বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল দেশ সফলভাবে লকডাউন পালন করতে সক্ষম হয়েছে। সম্প্রতি, কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে প্রকাশিত একটি গবেষণার রিপোর্টে এ রকমই দাবি করা হয়েছে।

দেশে লকডাউন পালন এবং করোনা মহামারীর নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত বিভিন্ন কেন্দ্র সরকারি পদক্ষেপের উপর গবেষণা চালিয়েছেন কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা। এই গবেষণায় প্রধানত মেশিন লার্নিং এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সংক্রান্ত অ্যালগরিদম ব্যবহার করেই সমীক্ষা চালানো হয়। সম্প্রতি বিশিষ্ট বিজ্ঞান বিষয়ক জার্নাল “পিএলওএস ওয়ান” এ কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সমীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে।

গবেষণার সাথে জড়িত এক গবেষক তথা কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসিসট্যান্ট প্রফেসর রণিতা বর্ধনের দাবি, ভারত একটি বিশাল এবং বৈচিত্র্যপূর্ণ রাষ্ট্র। এত বড় দেশের প্রতিটি মানুষের কাছে সামাজিক দূরত্ব বিধির বার্তা পৌঁছে দেওয়া সহজ ছিল না। এক্ষেত্রে তিনি পাশ্চাত্য দেশগুলির সাথে ভারতের তুলনা করে বলেছেন, পাশ্চাত্য দেশে ডিজিটালাইজেশনের সুবিধা ভারতের তুলনায় অনেক বেশি।

কিন্তু ভারতের মতো দেশে সমৃদ্ধির পাশাপাশি দারিদ্রতাও রয়েছে। কিন্তু বারবার জনসমক্ষে এসে সেই প্রতিকূলতাও কাটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন মোদি। আবার, বৈদ্যুতিন মাধ্যমকে হাতিয়ার করে বলিউড গান, কবিতা, নাটকের মাধ্যমে করোনার সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করে তোলা হয়েছে। পাশাপাশি টেলিভিশনে রামায়ণ-মহাভারতের মত অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে দেশবাসীকে মানসিক শক্তি এবং সাহস যোগানো হয়েছে। এই উদ্যোগ গুলি গ্রহণ করে, সরকার বরাবর করোনার বিরুদ্ধে দেশবাসীকে উদ্বুদ্ধ করতে চেয়েছেন।