ইউরোপে পিতৃতান্ত্রিক সমাজের মাঝেও এক সময় মাথা তুলে দাঁড়িয়ে ছিল মাতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা

9
ইউরোপে পিতৃতান্ত্রিক সমাজের মাঝেও এক সময় মাথা তুলে দাঁড়িয়ে ছিল মাতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা

দীর্ঘ বেশ কয়েক শতকের অন্ধকার যুগ পেরিয়ে আসার পর নারী শক্তির উত্থান ঘটেছে আধুনিক সভ্য সমাজে। এর জন্য বহু লড়াই, বহু সংগ্রাম, ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হতে হয়েছে মহিলাদের। আজও সেই লড়াই অব্যাহত। পিতৃতান্ত্রিক সমাজে নারী শক্তির অধিকারী ধরে রাখার লড়াইয়ে এখনো ময়দানে নেমে লড়ছেন মহিলারা। তবে জানেন কি পিতৃতান্ত্রিক সমাজের মাঝেও এক সময় ইউরোপে মাথা তুলে দাঁড়িয়ে ছিল মাতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা?

সাম্প্রতিক একটি আন্তর্জাতিক পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে তেমনটাই জানা গেল। সেই প্রবন্ধে উল্লেখ করা হয়েছে আধুনিক স্পেনে উদ্ধার করা হয়েছে অত্যন্ত প্রাচীন এক সমাধি। আজ থেকে প্রায় চার হাজার বছর আগের ওই সমাধিটি এক মহিলার সমাধি। সমাধিটিকে ভালো করে খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করে ঐতিহাসিকরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে এই সমাধিস্থলে তৎকালীন সমাজ ব্যবস্থার এক উচ্চপদস্থ মহিলাকে সমাধিস্থ করা হয়েছিল।

দক্ষিণ স্পেনের মুরসিয়া অঞ্চলের লা আমোলায়া নামের ওই সমাধিস্থলটি কার্যত তৎকালীন সমাজ ব্যবস্থার রাজকীয় সমাধিস্থল হিসেবেই চিহ্নিত হয়েছে। এখানেই সেরামিকের পাত্রে এক মহিলা এবং এক পুরুষের সমাধি আবিষ্কার করা হয়েছে। ওই মহিলার আশেপাশে এমন বহু দামি দামি জিনিসের নিদর্শন মিলেছে যা দেখে বিশেষজ্ঞদের মনে হয়েছে সমাজে অত্যন্ত উঁচু স্তরের মান্যতা পেয়েছিলেন এই সমাধিস্থ মহিলা।

তার মাথায় ছিল ডায়াডেম, ঐতিহাসিকদের মতে এটি একটি রাজকীয় মুকুট। এছাড়াও সমাধিস্থল থেকে মিলেছে তার ব্যবহৃত দামি ব্রেসলেট, আংটি ইত্যাদি। ২৩০ গ্রাম রুপো পাওয়া গিয়েছে ওই সমাধিস্থল থেকে। তৎকালীন সমাজ ব্যবস্থা অনুযায়ী ৯৩৮ জন দিন মজুরের দৈনিক পাওনার সমান ছিল এই রুপো! অর্থাৎ এই মহিলা যে অত্যন্ত অভিজাত সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন সেই নিয়ে ঐতিহাসিকদের কোনো সন্দেহ নেই। তবে তিনি ঠিক কোন পদে আসীন ছিলেন, তা অবশ্য এখনো জানা সম্ভব হয়নি। ২০১৩ সালে আবিষ্কৃত এই সমাধিটিকে নিয়ে এখনো গবেষণা চালানো হচ্ছে।