এই দশটি সতর্কতা অবলম্বন করে চললে কোনদিনও হাড়ের সমস্যা দেখা দেবে না

18
এই দশটি সতর্কতা অবলম্বন করে চললে কোনদিনও হাড়ের সমস্যা দেখা দেবে না

বয়স বাড়ার সাথেসাথে কমতে থাকে শরীরের শক্তি। শরীরে নানা সমস্যার সাথে শুরু হয় হাড়ের সমস্যা। তাই আমাদের উচিত সময় থাকতেই শরীরের যত্ন নেওয়া যাতে বেশী বয়সে এই রোগ আমাদের কাবু না করতে পারে। আজ এমনি কিছু উপায় এর সম্পর্কে বলব।

১। শাকসবজি ও ফল-প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় শাকসবজি ও ফল যোগ করতে হবে। যে সময়ে যে ফল পাওয়া যায় সেই ফল বেশী করে খেতে হবে। শাকসবজি ও ফলে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন থাকে যা আমাদের হাড় কে শক্ত করে।

২। ব্যায়াম- প্রতিদিনের রুটিনের সাথে ব্যায়াম এর অভ্যাস যোগ করতে হবে।সকালে উঠে অন্তত ১০ থেকে ১৫ মিনিট শরীরের পিছনে দিতে হবে। আপনারা জগিং ,ফ্রী হ্যান্ড কোন ব্যায়াম করতে পারেন।

৩।ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার-দুধ, ছোট মাছ, ঢেঁড়স ও যেসব সবজিতে ক্যালসিয়াম বেশি পরিমানে রয়েছে সেগুলো খেতে হবে তবেই শরীরে হাড়ের ক্ষয় বন্ধ করা সম্ভব।

৪। ভিটামিন কে- ভিটামিন কে আমাদের শরীরে হাড়ের ডেনসিটি বজায় রাখে।ভিটামিন কে সমৃদ্ধ মেডিসিন খাওয়া যেতে পারে ফলে আমাদের শরীরে হাড়ের ক্ষয় সহজেই বন্ধ হয়ে যাবে।

৫।নুন- খাবারের পাতে নুন ত্যাগ করতে হবে।নুন শরীরে হাইপার টেনশন বাড়িয়ে দেয় যা সরাসরি হাড়ের ক্ষতি করে। তাই আজ থেকেই পাতে নুন বর্জন করে দিন।

৬।নেশা বন্ধ- বয়স বাড়লে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমতে শুরু করে।তাই আমাদের উচিত এইসময় যেকোনো নেশা সম্পূর্ণ রুপে বর্জন করা।নেশা জাতীয় দ্রব্য হাড়ের ক্ষতির সাথে সাথে শরীরের অনেক ক্ষতি সাধন করে।

৭।অন্যান্য খনিজ পদার্থ- পটাশিয়াম ,আয়রন, সোডিয়াম সমৃদ্ধ খাবার এই সময়ে বেশি করে খেতে হবে। যত বেশি পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার এর দিকে নজর দিবেন ততই আপনার জন্য তা ভাল ফল প্রদান করবে।

৮।নিয়মিত চিকিৎসা- যেহুতু বয়স বাড়লে হাড়ের সমস্যা যেকোনো সময় শুরু হতে পারে তাই নিয়মিত যদি চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকেন এতে আপনার ই মঙ্গল হবে।দরকার পরলে প্রয়োজন অনুসারে এক্সরে করে নিতে পারেন।

৯।ভিটামিন ডি- ভিটামিন ডি হাড়ের স্বাস্থ্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।প্রতিদিন আমাদের শরীরে ৬০ এনজি/এমেল ভিটামিন ডি প্রয়োজন।

১০।লো ক্যালরি ডায়েট বন্ধ- হাড় কে রক্ষা করতে হলে লো ক্যালরি ডায়েট বন্ধ একদম বন্ধ করে দিতে হবে।লো ক্যালরি ডায়েট এর ফলে পেশী গঠন বন্ধ হয়ে যায় যা আমাদের শরীরকে খুব দুর্বল করে দেয়।