এই কয়েকটি জিনিস না জানলে বাতিল হয়ে যাবে আয়ুষ্মান প্রকল্পের আবেদন

8
এই কয়েকটি জিনিস না জানলে বাতিল হয়ে যাবে আয়ুষ্মান প্রকল্পের আবেদন

দেশবাসীর স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আমাদের দেশের প্রধান মন্ত্রীকে দেখা যায় নানা বিষয়ে উদ্যোগী হতে। আর ঠিক তেমনি কেন্দ্রের নয়া প্রকল্প আযুষ্মান ভারত। এই প্রকল্প  ২০১১ সালের আর্থ-সামাজিক জনগণনার ভিত্তিতে তৈরি করা হয়েছিল ।

মূলত সাধারণ মানুষের সু স্বাস্থের জন্যে এই স্বাস্থ্য বিমা চালু করা হয়। আয়ুষ্মান ভারতের পরিকল্পনা অনুযায়ী, গ্রামাঞ্চলের ৮.৩ কোটি এবং শহর এলাকার ২.৩৩ কোটি পরিবার এই প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেয় মোদী সরকার। এক একটি পরিবারের সদস্যদের ধরলে, প্রায় ৫০ কোটি মানুষকে আয়ুষ্মান প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসা হয়।

যেটা পরে ২০১৭ সালে আরো বিস্তারিত ভাবে শুরু হয়। ভারতের যে রোগগুলির প্রকোপ সবচেয়ে বেশি, তার একটা তালিকা তৈরি করা হয়। কোন রোগে গরীব দুঃখী বেশি মারা যাচ্ছেন বা ভুগছেন সেটার একটা লিস্ট করা হয় আর তাতে দেখা যায়, চিকিৎসা করাতে গিয়ে প্রতি বছর ছয় কোটিরও বেশি মানুষ এই দেশে সর্বস্বান্ত হন। এই প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের কেন্দ্রীয় বাজেটে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পটির ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার।

এতে যে কোনও সরকারি বা তালিকাভুক্ত বেসরকারি হাসপাতালে বছরে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা পাবেন। এই প্রকল্পে যারা আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে সেই মানুষরাই সুবিধা পেয়ে থাকেন। আপনি যদি এই আয়ুষ্মান প্রকল্পের জন্য আবেদন করেন, তাহলে বেশ কয়েকটি বিষয় আপনাকে মাথায় রাখতে হবে। নাহলে, আপনার আবেদন বাতিল হয়ে যেতে পারে।
সেই বিষয় গুলি কি কি আসুন জেনে নেওয়া যাক।

যেটা সর্ব প্রথম জরুরি সেটা হলো আপনি কি সত্যি আর্থিক দিক থেকে দুর্বল সেটা প্রমাণ করতে হবে। যদি সত্যি প্রমাণ হয় তবেই আয়ুষ্মান ভারতের কার্ড বানানো যাবে। এর জন্য দিতে হবে আপনাকে আধার কার্ড, রেশন কার্ড, বাড়ির ঠিকানা প্রমাণ ও।এর পর, ndhm.gov.in এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আয়ুষ্মান ভারত কার্ডের জন্য নাম নথিভুক্ত করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে ক্লিক করলে নীচের দিকে Health ID লেখা একটি জায়গা রয়েছে। তাতে ক্লিক করলে দুটি অপশন পাওয়া যাবে।

Learn More এবং Create Health Card। Create Health Card-এ ক্লিক করলে Generate Your Health Card লেখা অপশন আসবে। সেখানে নিজের প্রয়োজনীয় নথি দিয়ে নাম নথিভুক্ত করলে ১৪ সংখ্যার একটি নম্বর দেওয়া হবে। সেটাই সংশ্লিষ্ট ব‍্যক্তির হেল্থ আইডি নম্বর। আর learn more এ ক্লিক করলে আরো বিশদে জানতে পারবেন।