প্রেমিকের সাথে বউ পালিয়ে যাওয়ায় শ্বশুরবাড়িতে আত্মঘাতী স্বামী

7
প্রেমিকের সাথে বউ পালিয়ে যাওয়ায় শ্বশুরবাড়িতে আত্মঘাতী স্বামী

ভালোবেসে একে অপরের সঙ্গে আজীবন থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তারা। বিয়ে করেছিলেন। তবে বিয়ের পর স্ত্রী অন্য যুবকের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। একবার নয়, পরপর দুইবার ওই যুবকের সঙ্গে পালিয়ে যান স্ত্রী। এমনকি প্রেমিকের সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি দেখাতেও তার বাঁধেনি। এমন এক পরিস্থিতিতে মর্মান্তিক কাণ্ড ঘটালেন স্বামী।

লজ্জায় অপমানে শ্বশুরবাড়িতে আত্মহত্যা করলেন ওই যুবক। পূর্ব বর্ধমানের কালনাতে ঘটেছে এই মর্মান্তিক কান্ড। মৃতের নাম সুদেব দে। প্রায় দুই দশক আগে তিনি নিজের গ্রামের মেয়ে টুম্পাকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন। তাদের এক কন্যা সন্তান রয়েছে। মেয়ের বিয়ের পর টুম্পার বাবা কর্মসূত্রে গ্রাম ছেড়ে কালনা শহর লাগোয়া শ্বাসপুর গ্রামে থাকতে শুরু করেন।

সেখানেই এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন টুম্পা। প্রেমিকের সঙ্গে তিনি ইতিপূর্বে দুবার পালিয়েও গিয়েছিলেন। কোনরকমে তাকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে ফিরিয়ে আনা হয়। এবার তাঁরা আবার সংসার করতে শুরু করেন। যদিও তিনি তার প্রেমিকের সঙ্গে সম্পর্ক রেখে চলেছিলেন।

সদ্য সকলের সামনেই তিনি ওই যুবকের সঙ্গে আবার ঘর ছেড়ে বেরিয়ে যান। এতে অপমানিত এবং লজ্জিত হয়ে সোমবার রাতে শ্বশুরবাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই মহিলার স্বামী‌। মৃত্যুর আগে তিনি একটি সুইসাইড নোট লিখে গিয়েছেন। সেখানে তিনি জানিয়েছেন লজ্জায় অপমানে তিনি এই পথ বেছে নিতে বাধ্য হয়েছেন।