বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী বাড়িতে কীভাবে জুতো রাখবেন? জেনে নিন

5
বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী বাড়িতে কীভাবে জুতো রাখবেন? জেনে নিন

সনাতন ধর্মে বাস্তুশাস্ত্রের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী, ঘরের জিনিসপত্র সঠিক আমরা যদি জায়গায় না রাখতে পারি তাহলে পরিবারের ওপর নেতিবাচক শক্তির প্রভাব পড়ে এবং বিভিন্ন কাজে বাধা সৃষ্টি হয়। সেই সাথে অর্থনৈতিক দিক থেকে সেই পরিবার দুর্বল হতে থাকে।

বাস্তুশাস্ত্রে ঘরে জুতো ও চপ্পল রাখার জায়গাও নির্দিষ্ট করার কথা বলা হয়েছে। বাড়ির ভুল জায়গায় জুতো এবং চপ্পল খুলে রাখা কখনোই উচিত নয়, এরফলে সংসারে অর্থকষ্ট তৈরী হয়। ঘরে উল্টানো অবস্থায় খুলে রাখা জুতো এবং চপ্পল দুর্ভাগ্য বয়ে আনে এবং এটি পরিবারে নানান সমস্যা, অশান্তি ও ঝামেলা তৈরী করে।

বাস্তুশাস্ত্র অনুযায়ী, যেহেতু বাড়ির মূল দরজা অর্থাৎ সদর দরজা দিয়ে ইতিবাচক শক্তি প্রবেশ করে, তাই সেই দরজাকে সুন্দর ও মজবুত করার দিকে বেশি লক্ষ্য রাখা উচিত। কিন্তু অনেকেই না জেনে সদর দরজার সামনেই জুতো বা চপ্পল রেখে দেন। আর মূলত এই কারণে সংসারে অর্থাভাব ঘনিয়ে আসে এবং মা লক্ষ্মীর প্রবেশ বন্ধ হয়ে যায়।

শোবার ঘরে কখনোই জুতা বা জুতার ব়্যাক রাখবেন না। কারণ এতে দাম্পত্য জীবনে অশান্তি তৈরি হয় এবং ঘরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রতিনিয়ত কলহ বিবাদ চলে। বাড়িতে জুতো ও চপ্পল খুলে রাখার নির্দিষ্ট জায়গা রয়েছে। কখনও ভুল করেও উত্তর-পূর্ব দিকে জুতো ও চপ্পল খুলে রাখা ঠিক নয়। এতে পরিবারের আর্থিক অবস্থার অবনতি ঘটে এবং পরিবার ঋণে জর্জরিত হয়ে পড়ে। সেক্ষেত্রে ঘরের দক্ষিণ বা পশ্চিম দিকে জুতো ও চপ্পল রাখা যেতে পারে।