কোনো কাজ না করেও কীভাবে দিন কাটান ববি দেওল? জানুন

15
কোনো কাজ না করেও কীভাবে দিন কাটান ববি দেওল? জানুন

বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতাদের মধ্যে একজন হলেন ববি দেওল, বর্তমানে তাকে আর তেমন কোনো সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা যায় না, তবে ওয়েব সিরিজে তিনি বেশ মন দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। তবে বলে রাখা ভালো যে তিনি যদি কোনো কাজ না করেও থাকেন তবে ঘরে বসেই তিনি দিনের পর দিন কাটিয়ে ফেলতে পারেন।

আপনাদের মনে প্রশ্ন উঠতেই পারে যে কাজ না করলে অভাব কেন হবেনা? আসল কথা হলো ববি দেওয়াল হলেন কোটিপতি বিনিয়োগকারী দেবেন্দ্র আহুজার জামাই। দেবেন্দ্রর কন্যাকে তিনি বিয়ে করেছেন যার ফলে রাজত্ব এবং রাজকন্যা দুটোই একসঙ্গে পেয়েছেন। একটি বেসরকারি ব্যাংকের উচ্চপদস্থ কর্মচারী ছিলেন দেবেন্দ্র আহুজা, কিন্তু তিনি শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করে প্রায় ৩০০ কোটি টাকার সম্পত্তি করেন।

বলিউডের কোন তারকা নন তবুও তার জীবন রঙিন, তবে তিনি আর তার পরিবারের সঙ্গে থাকেন না কারণ তার পরকীয়ার কারণেই তিনি বাড়িঘর এবং পরিবার থেকে দূরে থাকেন। জানা গিয়েছিল যে ববি দেওলের শশুর একজন বিমানসেবিকা প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন যাদের মধ্যে বয়সের পার্থক্যটা ছিল প্রায় কুড়ি বছরের।

বাবার এধরণের সম্পর্ককে মেনে নিতে পারেননি দেবেন্দ্রর ছেলে বিক্রম সেই জন্যই তিনি তার বাবাকে থাকতে বলেন অন্য কোথাও। ছেলের এই রকমের দাবিও মেনে নিয়েছিলেন দেবেন্দ্র অবশেষে নরিম্যান পয়েন্টের ভিতরের একটি ফ্ল্যাটে দেবেন্দ্র সেই বিমানসেবিকা সঙ্গে থাকতে শুরু করেন, তবে তার সঙ্গে তার ছেলের কোন সম্পর্ক ছিল না।

তার একমাত্র কাছের মানুষ জামাই ববি, কারণ যে যখন তার ওই বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক হয় ততক্ষণে তার কন্যা তানিয়ার সঙ্গে ববির বিয়ে হয়ে গিয়েছিল। জানা গেছে যে দেবেন্দ্র তার ছেলের নামে কোন সম্পত্তি দেননি বরং মেয়ের নামের সমস্ত সম্পত্তি লিখে দিয়েছিলেন। দেবেন্দ্র চেয়েছিলেন যে তাঁর শেষকৃত্য যেন তার জামাই ববি করে।

অবশেষে ২০১০ সালে হূদরোগে আক্রান্ত হয়ে দেবেন্দ্রর মৃত্যু হয় কিন্তু সেই সময় দেবেন্দ্রর ছেলে অর্থাৎ বিক্রমকে তার বাবার মৃত্যুর খবর দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে শুটিংয়ের কাজে বিদেশে ব্যস্ত ছিলেন ববি অবশেষে দেশে ফেরার পর দেবেন্দ্রর শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন ববি দেওল।