কীভাবে বুঝবেন শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য হয়েছে? জেনে নিন কিছু লক্ষণ

14
কীভাবে বুঝবেন শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য হয়েছে? জেনে নিন কিছু লক্ষণ

কোষ্ঠকাঠিন্য অথবা বদহজমের সমস্যা যে শুধুমাত্র বড়দের হবে তা কিন্তু নয়, অনেক সময় শিশুদের মধ্যে এই কোষ্ঠকাঠিন্যের উপসর্গ দেখতে পাওয়া যায়। তবে প্রাপ্ত বয়স্কদের থেকে শিশুদের এই রকম সমস্যা হলে তা উপশম হতে অনেকটা সময় লেগে যায়। কয়েক মাসের শিশুদের যদি কোষ্ঠকাঠিন্য হয় তাহলে সেটি তারা মুখে বলতে পারেনা, অন্যদিকে শিশুকে আরাম দিতে অথবা সমস্যা সমাধান হতে অনেক সময় লেগে যায়। যেহেতু ছোট শিশুরা মনের ভাব প্রকাশ করতে পারেনা তাই তাদের সমস্ত বুঝতে আমাদের অনেকটা সময় চলে যায়।

তাই এই প্রতিবেদনে আপনাদের জানাব এমন কিছু লক্ষণের কথা যা দেখলে আপনি বুঝতে পারবেন, আপনার শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য রয়েছে। এই লক্ষণগুলি লক্ষ্য করেই তাড়াতাড়ি আপনি বুঝে যাবেন আপনার সন্তান কষ্ট পাচ্ছে।

খেয়াল করুন মলত্যাগের সময় শিশুর কোন কষ্ট হচ্ছে কিনা। মল সহজে বের না হলে শক্ত হয়ে গেলে বুঝবেন কোষ্ঠকাঠিন্য হয়েছে।

কোষ্ঠকাঠিন্য হলে শিশুদের মল কালো এমনকি রক্তাক্ত হতে পারে। এইসময় শিশুরা খুব কান্নাকাটি করে।

শিশুদের পেট ফুলে যায় এবং শিশুরা কোন কিছু খেতে চায় না। কোষ্ঠকাঠিন্য হলে পেটে অতিরিক্ত গ্যাস জমে যায় এবং শিশুরা কষ্ট পায়।

শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য হলে আপনি আগে ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করবেন। ভালো করে চেকআপ করিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী শিশুকে দেখভাল করবেন।

প্রতিদিন শিশুকে ব্যায়াম করাতে হবে। এছাড়া হাতে-পায়ে ভালো করে তেল মালিশ করতে হবে। রক্ত সঞ্চালন এবং অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সক্রিয় হলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়ে যেতে পারে।

প্রতিদিন নিয়ম করে ব্রেস্ট ফিড করাতেই হবে। আপনার শিশু যদি ফর্মুলা মিল্ক খায় তাহলে কোনটি দেবেন তা একবার চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেবেন।

বাচ্চা যদি একটু বড় হয় তাহলে তাকে ফলের রস খাওয়াতে পারেন। আপেলের রস অথবা ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার খাওয়াতে পারেন তাকে।

শিশুকে শুইয়ে না রেখে সাবধানে বসিয়ে রাখার চেষ্টা করুন। স্নানের সময় বাথটবে বসিয়ে স্নান করার চেষ্টা করুন। হালকা গরম জলে স্নান করলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর হয়ে যেতে পারে।