কীভাবে খ্যাতির শিখরে পৌঁছেছিলেন মাধুরী দীক্ষিত? জানুন তার কাহিনী

6
কীভাবে খ্যাতির শিখরে পৌঁছেছিলেন মাধুরী দীক্ষিত? জানুন তার কাহিনী

মাধুরী দীক্ষিত, যার নাম শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে ভুবন ভুলানো হাসি। বহু বছর ধরেই বলিউডে রাজত্ব করেছিলেন তিনি। একসময়ের জুহি চাওলার সঙ্গে মনোমালিন্য তৈরি হয়েছিল তার। তবে শুরুর দিকে যাত্রা একেবারেই সহজ ছিল না তার। অন্যান্য অভিনেত্রী দের মত চড়াই-উৎরাইয়ের মধ্যে দিয়ে জীবনের সাফল্য অর্জন করেছিলেন তিনি। তার কোন গডফাদার ছিল না, তাই স্বাভাবিকভাবেই অনেক যাত্রা করে তবে তিনি খ্যাতির শিরোনামে পৌঁছেছিলেন।

চলুন আজকে জেনে নেওয়া যাক মাধুরী দীক্ষিতের জীবনের কিছু অজানা কথা। ১৯৮৪ সালে তাপস পালের বিপরীতে ছবি করার মাধ্যমে অভিনয় জগতে পা রেখেছিলেন তিনি। তবে এই সিনেমাটি খুব একটা সাফল্য লাভ করতে পারেনি। তখন নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য মানব হত্যা, নামে একটি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। কিন্তু এই ভাবেও তিনি সাফল্যের মুখ দেখতে পাচ্ছিলেন না।

তখন তিনি বুঝতে পারেন, কোন বড় ব্যানারে নামকরা তারকার বিপরীতে অভিনয় না করলে তিনি সাফল্য পাবেন না। ঠিক এই সময়ে দয়াবান ছবির অফার আসে তার কাছে। যেখানে বিনোদ খান্নার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এটি সেই সিনেমা, যাকে আজও বিতর্কিত সিনেমা বলে অভিহিত করা যায়। মাধুরী দীক্ষিত এই সিনেমাটি করার আগে ভেবে ছিলেন, নামি তারকার বিপরীতে অভিনয় করলে কেরিয়ার অনেকটাই এগিয়ে যাবে তার। তবে সমস্যা তৈরি হয় সিনেমায় শয্যা দৃশ্য শ্যুট করার সময়। এই দৃশ্যে অভিনয় করার সময় সমালোচনার সম্মুখীন হতে হয় মাধুরী দীক্ষিতকে।

এরপর পারিন্দা সিনেমাতে অভিনয় করার জন্য অফার আসে তার কাছে। তখন তিনি ঠিক করেছিলেন তিনি কোন সহবাসের দৃশ্যে আর অভিনয় করবেন না। সিনেমার চিত্রনাট্য খুব পছন্দ হলেও সেখানে বেশ কিছু ঘনিষ্ঠ দৃশ্য ছিল, যেগুলি শুনে রীতিমতো দ্বিধায় পড়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তবে পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে তিনি বোঝেন দৃশ্য ঘনিষ্ঠ হলেও কুরুচিকর নয়। ব্যক্তিগত জীবন থেকে সরে গিয়ে তাকে অভিনয় জগতে প্রবেশ করতে হবে এমন কোথাও তাকে জানান পরিচালক।

এরপর থেকে সমস্ত সিনেমায় তিনি সাবলীলভাবে অভিনয় করে গেছেন। দয়াবান অথবা প্রেম প্রতিজ্ঞা সিনেমা তে অভিনয় করতে গিয়ে অস্বস্তিতে পড়লেও পরবর্তীকালে তিনি নিজেকে চরিত্র অনুযায়ী সাজিয়ে নিতে শিখিয়েছিলেন।