গৌরি-শাহরুখ দুজনের আলাদা ধর্ম হওয়া সত্ত্বেও কিভাবে একসঙ্গে কাটালেন এত বছর? জানুন রহস্য

8
গৌরি-শাহরুখ দুজনের আলাদা ধর্ম হওয়া সত্ত্বেও কিভাবে একসঙ্গে কাটালেন এত বছর? জানুন রহস্য

আমরা সকলেই জানি যে যখন শাহরুখ খান আমাদের সকলের প্রিয় শাহরুখ খান হয়নি, তখনো তার পাশে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল গৌরি খান। তাদের জীবন যুদ্ধ এতটা মসৃণ ছিল না। আজ যে মানুষ এক কথাতেই উড়ে যেতে পারে পৃথিবীর যেকোন প্রান্তে, সেই মানুষটি তখন নিজের ক্যারিয়ারে সঙ্গে যুদ্ধ করতে ব্যস্ত। তার মধ্যে দুজনের ধর্ম সম্পূর্ণ আলাদা। তাই তাদের প্রেম যে খুব সহজে পরিণতি পাইনি তা বলাই বাহুল্য। গৌরী র পরিবারের লোকজন সহজে মেনে নেয়নি শাহরুখ খানকে। একে মুসলিম, তার মধ্যে সে রকম কোনো কাজ নেই। সব মিলিয়ে একেবারেই পছন্দ ছিল না শাহরুখ খানকে। কিন্তু তাদের ভালোবাসা দেখে অবশেষে রাজি হতে হয়েছিল গৌরীর বাড়ির লোকেদের। বিয়ের সময় ও শাহরুখ খানকে নিয়ে গুঞ্জন হতে দেখা দেখেছিল সকল মানুষদের মধ্যে।

শাহরুখ খান বেশ বুঝতে পেরেছিলেন যে, তাকে নিয়ে সবার মধ্যে বেশ একটি দ্বিধাবোধ কাজ করছে। সবার মনেই প্রশ্ন যে, বিয়ের পর কি সম্পূর্ণ আলাদা রীতিনীতি পালন করতে হবে গৌরীকে?
কিছু কিছু প্রশ্ন শাহরুখের সামনেই করছিলেন সকলে। এ সমস্ত প্রশ্ন দেখে এক সময়ে শাহরুখ খানের মাথায় দুষ্টু বুদ্ধি খেলে গেল।ফুলসজ্জার দিন শাহরুখ খান সকলের সামনেই গৌরীকে বলেছিলেন যে, তাহলে আজকের পর থেকে তোমার নাম পাল্টে ডাকবো আয়েশা। তোমাকে আর গৌরী বলে ডাকা যাবে না। আজ থেকে তুমি বোরকা পড়ে থাকবে সব সময়।

বেশ কিছু বছর পর ফরীদা জলাল কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে একথা বলেছিলেন শাহরুখ খান। তিনি বলেছিলেন যে, আমি সকলকে দেখে আর মজা না করে থাকতে পারলাম না। সবাই আমার কথা শুনে বেশ অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু তখন আমি আর গৌরী মুচকি হাসছিলাম। আজও এত বছর পর তারা একই সঙ্গে রয়েছেন। হাজারো ঝড়ঝাপ্টার মধ্যে তাদের ভালোবাসা অটুট রয়েছে। কোন কিছুই তাদের আলাদা করতে পারেনি।